দীপ বিশ্বাস

দীপ বিশ্বাস

I love what I do... I do what I love...

রাজশাহী-পুঠিয়া রাজবাড়ী

পুঠিয়া রাজবাড়ী বা পাঁচআনি জমিদারবাড়ী হচ্ছে মহারানী হেমন্তকুমারী দেবীর বাসভবন। বাংলার প্রত্নতাত্ত্বিক ঐতিহ্যের মধ্যে রাজশাহীর পুঠিয়া রাজবাড়ী অন্যতম।

মানিকগন্জ:-বালিয়াটি জমিদার বাড়ী

পশ্চিম দিকে তাল পুকুরের ধারে আয়োজন করা হতো রথ উৎসব। এখানে বসত রথের মেলা। পর্যাপ্ত জায়গার অভাবে বর্তমানে এই স্থানে রথের মেলা হয় না।

সীতাকুন্ডের সহজতম ট্রেইল

লেক এর একদম কাছেই বুদবুদকুণ্ড আর পুরানো মন্দির। সহস্রধারা লেক এর বামপাশের পথ ধরে সামনে এগোলে সহস্রধারা- ২ ঝর্না পাওয়া যাবে।

ছবিতে গুলিয়াখালি সমুদ্র সৈকত

ঢাকা থেকে যে কোন চট্টগ্রামগামী বাসে উঠে সীতাকুন্ড নামতে হবে। সীতাকুন্ড বাজার থেকে সিনজি তে করে পশ্চিমে ৩ কিমি দূরে, ৩০০ টাকা ভাড়া পড়বে রিজার্ভ করলে। মুরাদপুর সি বিচ বললেই হবে

ঝরঝরি ট্রেইল, পন্থিছিলা ,সীতাকুন্ড

মূর্তি ঝর্নার খুব কাছে না গেলে রাস্তাটা দেখা যাবে না। মূর্তি ঝর্নার মাঝখান দিয়ে উপরে উঠলেই পাওয়া যাবে আরো একটা সুন্দর ঝর্না এবং ক্যাসকেড।

টাঙ্গুয়ার হাওর-নিলাদ্রি-কেয়ারি লেক-জাদুকাটা নদী-বারিক্কা টিলা-টেকেরঘাট, সুনামগন্জ

যখন টাঙ্গুয়ার থেকে ফিরবেন তখন দেখবেন আপনার সমস্যাগুলো আর খুজেঁ পাচ্ছেন না। অদ্ভুত সুন্দর একটা জায়গা।

টুঙ্গিপাড়ার লাল শাপলার বিল

এসব বিলে এমনভাবে লাল শাপলায় ভরে রয়েছে যে, দুর থেকে যেন মনে হবে পুরো বিল লাল গালিচা দিয়ে ঢেকে রাখা হয়েছে। প্রাকৃতিক এ সৌন্দয্য উপভোগ করতে দূর-দূরান্ত থেকে লোক আসেন।

ছোট সোনা মসজিদ

ছোট সোনা মসজিদ বাংলাদেশের অন্যতম প্রাচীন মসজিদ।

গোলাপগ্রাম

বাজারের চারপাশের বাতাস তখন গোলাপের গন্ধে ভরে ওঠে! গোলাপ এর ঘ্রান মিশ্রিত বাতাস যখন সারা শরীর স্পর্শ করে যায় তখন অদ্ভুত এক ভালোলাগার সৃষ্টি হয়!

নদীর নাম জাদুকাটা

এখানে ঝকঝকে আকাশের সঙ্গে পুরো এলাকাটাই মনে হবে রঙিন ক্যানভাস। অসাধারণ স্বপ্নিল এক পরিবেশ। 

পদ্ম বিল-করপাড়া,গোপালগন্জ

দূর থেকে মনে হবে যেন ফুলের বিছানা পেতে রেখেছে কেউ। প্রতিদিনই এ সৌন্দর্য উপভোগ করতে আসছে দর্শনার্থীরা!

পঞ্চগড়:-রকস মিউজিয়াম...

পঞ্চগড় অঞ্চলের নব্যপ্রস্তর যুগের হাতিয়ার উপকরন আবিষ্কৃত না হলেও মসৃন ও অমসৃণ শিলা পাওয়া যায়।এইসব শিলা খন্ড প্রাচীনকালে সেতুতেও ব্যবহৃত হয়েছে

মুন্সিগন্জ:-বাবা আদমের মসজিদ...

বাবা আদম মসজিদ বাংলাদেশের মুন্সীগঞ্জ জেলায় অবস্থিত একটি প্রাচীন মসজিদ, যা পঞ্চদশ শতাব্দীতে নির্মিত

ষাইট্টার ৫০০ বছরের পুরানো বট গাছ...

বটগাছটি রহস্যেঘেরা। কয়েক বছর আগে গ্রামের কানু মিয়া নামে এক ব্যক্তি এ গাছের ডাল কাটার পর অসুস্থ হয়ে মারা যান। অনেকে বলছেন রাতের আঁধারে গাছটির ডালপালায় কয়েকশ শিশু নাচগান করে

আলোচিত পোস্ট


আজকের ছবি-১৬-০১-১৮

আজকের ছবি-১৬-০১-১৮

মঙ্গলবার, জানুয়ারী ১৬, ২০১৮

শামখোলের আস্তানায়

শামখোলের আস্তানায়

সোমবার, জানুয়ারী ১৫, ২০১৮

আজকের ছবি-১৫-০১-১৮

আজকের ছবি-১৫-০১-১৮

সোমবার, জানুয়ারী ১৫, ২০১৮