দীপ বিশ্বাস

দীপ বিশ্বাস

I love what I do... I do what I love...

নাগাল্যান্ডের জুকৌ উপত্যকা

জুকৌ উপত্যকার পাহাড়ি আঁকা বাঁকা পথ ট্রেকারদের একটি স্বর্গোদ্যান। রডোডেনড্রন, ইউফোরবিয়া, অ্যাকোনিটাম এবং লিলি গ্রীষ্মের প্রারম্ভে জুকৌ ভ্যালিকে রঙে ভরিয়ে তোলে। বন্য ফুলের স্পন্দনশীল রং এই সম্মোহিত উপত্যকাকে একটি স্বর্গীয় চেহারা প্রদান করে।

মেঘালয়ের ঐশ্বর্য্যঃ পাইনুরসলা গ্রাম

পাইনুরসলা গ্রাম হয়ে মেঘের মধ্য দিয়ে শিলং পৌঁছুবেন। পাইনুরসলা থেকে পুরো রাস্তা মেঘে ঢাকা থাকে।দিনের বেলায়ও হেডলাইট অন করে গাড়ী চালাতে হয়। পাইনুরসলা ছবির মত সুন্দর।

অমৃতসরের অমৃতের খোঁজে

যারা খেতে ভালোবাসেন তাদের জন্য পাঞ্জাব ভ্রমন অতি আবশ্যক।পাঞ্জাবের লাচ্ছি একবার খেলে আপনার অন্য কোন লাচ্ছি আর ভালো লাগবে না।শুধু পাঞ্জাবের খাবার খাওয়ার জন্য হলেও সবার একবার পাঞ্জাব যাওয়া উচিত।

পাঞ্জাবের গোল্ডেন টেম্পলঃ সকল ধর্মের মানুষের জন্য অবারিত যে মন্দির

মন্দিরটির সরলতার প্রতীকস্বরূপ, মন্দিরটিতে চারটি প্রবেশপথ আছে; যা জীবনের সমস্ত দিক ও পথ থেকে আসা মানুষকে স্বাগত জানায়। গোল্ডেন টেম্পল বা স্বর্ণ মন্দিরটি শিখদের জন্য একটি পবিত্র স্থান ও উপাসনার একটি জায়গা।

মধুমাসে লিচুর রাজধানী দিনাজপুরে ভ্রমণ

বিরল ও সদর উপজেলার প্রায় প্রতিটি বাড়ির ভিটা, উঠান, আঙ্গিনাতেও লিচুর গাছ লাগিয়ে থাকে লিচু চাষিরা। দরদাম করে গাছ থেকে নিজ হাতে পেরে লিচু খেতে পারবেন এখানে।

কাশ্মীরের সিন্ধু নদঃ সবুজ ভূমিতে শুভ্র অববাহিকা

সিন্ধু অববাহিকার শুরু তিব্বত এবং হিমালয় পর্বতমালায় যা  জম্মু-কাশ্মীর এবং হিমাচল প্রদেশে অবস্থিত

সেন্ট মার্টিন এর পশ্চিম বিচঃ সমুদ্রতটে চন্দ্রাহত

পশ্চিম দিক জুড়ে রয়েছে প্রায় ১০-১৫ কিলোমিটার প্রবাল প্রাচীর। দ্বীপের শেষ মাথায় সরু লেজের মত আর একটি অবিচ্ছিন্ন দ্বীপ রয়েছে যার নাম ছেঁড়াদ্বীপ।

আগ্রা'র ফতেহপুর সিক্রিঃ তানসেন, বীরবল ও এক ভাগ্যবিড়ম্বিত নর্তকীর গল্প

প্রাসাদের সবাই জরিনাকে পছন্দ করলেন। কিন্তু রানি যোধা বাঈয়ের দাসী মাধবী জরিনাকে পছন্দ করল না। সম্রাটের কাছ থেকে জরিনা বেশি মনোযোগ পাওয়ার কারণে মাধবী জরিনার প্রতি ঈর্ষাকাতর ছিল। জরিনাকে সম্রাটের চোখে অপরাধী বানাতে চাইল সে।

মানালির রোয়েরিক আর্ট গ্যালারিঃ রাশিয়ান চিত্রকরের স্মৃতি বয়ে বেড়ানো স্থাপনা

দুধারে পাইনের জঙ্গল পাশে রেখে পাহাড়ি ঢালু রাস্তা বেয়ে যখন রোয়েরিক আর্ট-গ্যালারির কম্পাউণ্ডে ঢুকলাম তখন আমি প্রায় বাক্যহারা। পাইন আর পাহাড়ি ফুলের বাগান ঘেরা এই ছবির মত পরিবেশ আর্ট-গ্যালারির জন্য একদম উপযুক্ত। 

উয়ারী-বটেশ্বরঃ বাংলাদেশের সর্বপ্রাচীন জনপদের সন্ধানে

বাংলাদেশের ইতিহাসের শেকড় প্রোথিত রয়েছে পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের অববাহিকা নরসিংদীর উয়ারী-বটেশ্বরে। উয়ারী-বটেশ্বর অঞ্চলে ২০০৬ সালে প্রাপ্ত পুরাতাত্ত্বিক নিদর্শন অনুযায়ী বাংলাদেশ অঞ্চলে জনবসতি গড়ে উঠেছিলো প্রায় ৪ হাজার বছর আগে। ঐতিহাসিকদের ধারণা এবং সম্প্রতি উয়ারি-বটেশ্বরে আবিষ্কৃত প্রত্ন নিদর্শন থেকে জানা যায়, এ অঞ্চলে মানব বসতি শুরু হয়েছিল নব্য প্রস্তর যুগের সূচনা কালে।

বান্দরবানের ঐতিহ্যবাহী খাবার

নতুন কোন জেলায় ঘুরতে গেলে আমি ওই জেলার বিখ্যাত খাবার গুলো খাওয়ার চেস্টা করি সবসময়।নতুন নতুন স্বাদের খাবার খেতে ভালোই লাগে।

রাঙ্গামাটির ঐতিহ্যবাহী খাবার

বাংলাদেশের প্রায় প্রতিটি জেলা বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী খাবারে ভরপুর।ঘোরাঘুরি করা হয় সারা বছর জুড়েই।নতুন কোন জেলায় ঘুরতে গেলে আমি ওই জেলার বিখ্যাত খাবার গুলো খাওয়ার চেস্টা করি সবসময়।নতুন নতুন স্বাদের খাবার খেতে ভালোই লাগে।

কাশ্মীর বৃত্তান্ত

কলকাতা থেকে সরাসরি জম্মু যাওয়ার দুটি ট্রেন আছে। হিমগিরি ও জম্মু তাওয়াই। হিমগিরি সপ্তাহে ৩ দিন (মঙ্গল, শুক্র ও শনিবার) রাত ১১:৫০ টায় হাওড়া থেকে জম্মুর উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়।

বাংলাদেশের উচ্চতম সড়ক থেকে

উশে’র সম্প্রদায় যেখানে বসবাস করে সেখান থেকে ৩ দিনের হাঁটা দূরত্বে ডিম পাহাড়ের অবস্থান। পাহাড়চূড়ার ডিমের মতন আকৃতির জন্যই এমন নামকরণ। প্রতি পূর্ণিমা রাত্রিতে ডিম পাহাড়ের চূড়ায় এক অদ্ভুত ফুল ফোটে। আবার সকালবেলায় সেই ফুল ঝরে পড়ে।

হোটেল মুঘল দরবারে কাশ্মীরি ওজওয়ান, শ্রীনগর, কাশ্মীর

বাংলাদেশ থেকে প্রচুর লোক কাশ্মীর বেড়াতে যান।ঘোরাঘুরির পাশাপাশি কাশ্মীরের ঐতিহ্যবাহী ওজওয়ান খেয়ে দেখতে পারেন।অসাধারন খেতে। ‘’ওজওয়ান'’ নামটি কাশ্মীর থেকে বেরিয়ে আসা প্রতিটি মানুষের মুখে মুখে শুনতে পাওয়া যায় কারণ যিনি এই খাবার একবার খান তিনি তার জীবনে কখনো এর কথা ভুলতে পারেন না।

আলোচিত পোস্ট