আশিক সরওয়ার

আশিক সরওয়ার

ভ্রমণ , ঘুরা ঘুরি , 

ক্বীন ব্রীজঃ সিলেটে শহরের প্রবেশদ্বার

১৯৭১ সালে পাক হানাদার বাহিনীর বোমার আঘাতে ব্রীজটির ব্যাপক ক্ষতি সাধন হলেও স্বাধীনতার পর ব্রীজটি কাঠ ও বেইলী পার্টস দিয়ে মেরামত করা হয়।

বাংলাদেশের শেষ বাড়ী

এই বাড়ীর কাছে গিয়ে নিবিড় ভাবে উপভোগ করতে পারবেন মেঘালয়ের পাহাড়গুলো আর জৈন্তা ঝর্না।

মসজিদের শহর চাঁপাইনবাবগঞ্জ

আমার দেখা বাংলাদেশের ৩টি মসজিদের শহরের মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জ ছিল অন্যতম।

ঢাকার বুকে বুড়িগঙ্গা

বর্ষাকাল আসলে অতীত ঐতিহ্যের কিছু ঝলক দেখায় বুড়িগঙ্গা। নাকে রুমাল চেপে চলা পাড়ের মানুষরাও নিতে পারে এক বুক নিশ্বাস।

পদ্মা পাড়ের সূর্যাস্ত

ছোট এই দেশের কোনায় কোনায় লুকিয়ে আছে সৌন্দর্য। থাকতে হবে শুধু দেখার চোখ।

আমাদের বুড়িগঙ্গা

নৌকা নিয়ে চলে যেতে পারবেন নদীর ওপারের কেরানীগঞ্জ। শ্যামল বাংলার গ্রামের ছোটখাট ঝলকানি কেরানীগঞ্জ আসলে দেখতে পারবেন

শশীলজ ময়মনসিংহ

মহারাজা শশীকান্ত আচার্য চৌধুরীর অপূর্ব সৃস্টি শশী লজ।

শ্যামসিদ্ধির মঠ, শ্রী নগর, মুন্সীগঞ্জ।

প্রায় ২৪৭ বছরের পুরানো এই মঠটি বিক্রমপুরের ধর্নাঢ্য ব্যক্তি সম্ভুনাথ মজুমদার তার পিতার স্মৃতি রক্ষার্থে নির্মান করেন। 

কাপ্তাই এ কায়াকিং

হালের উঠতি ক্রেজ

ক্যাবল কার রাইডিং

রাঙ্গুনিয়ার শেখ রাসেল এভেয়ারী পার্কে ছোট ছোট টিলা পাহাড়ের মাঝে দিয়ে এভাবেই চলে ক্যাবল কার

গারো পাহাড়ের পাদদেশে

ছবির জায়গাটি হচ্ছে গোপালপুরের গারো পাহাড়, ইহা পড়েছে নেত্রকোনায়। দূরে দেখা যায় মেঘালয়া

পাতরাইল মসজিদ

প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী আউলিয়া খান জামে মসজিদ যা ১৩৯৩ হতে ১৪১০ খ্রিঃ মধ্যে গিয়াসউদ্দিন আজম শাহ নির্মাণ করেন বলে ধারণা করা হয়।

মহেড়া জমিদার বাড়ি

পুরান বাড়ি আমরা ঘুরতে যাই কিন্তু এর পিছনের ইতিহাস নিয়ে আমরা কত জন ঘাটাঘাটি করি। মহেড়ার জমিদাররা ছিল শাহা বংশের। বংশীয় ভাবে বনেদী ব্যবসায়ী

রাণী ময়নামতির প্রাসাদ

একটি বৌদ্দ মন্দিরের ৪টি নির্মাণ যুগের স্থাপত্য কাঠামো উন্মোচিত হয়। খননের সময় এখান থেকে বেশ কিছু পোড়ামাটির ফলক ও অলংকৃত ইট আবিষ্কৃত হয়েছে।

আলোচিত পোস্ট