আবদুল গাফফার রনি

আবদুল গাফফার রনি
লেখক, প্রকৃতিপ্রেমী

বিজ্ঞান ও পরিবেশ ভাল লাগে, ভালবাসি। 

একটি মদনটাক উদ্ধার অভিযানের গল্প

বর্তমানে বাংলাদেশে মাত্র চারশো থেকে পাঁচশোটি মদনটাক টিকে আছে।

হঠাৎ দেখা কমলা-দামা

দামাদের আচরণ যেন ঠিক স্বাভাবিক নয়, কেমন যেন ভয় ভয় ব্যাপার আছে। চলনে-বলনে অতি সতর্কতা। কেন? সেটা ভাবছি, তখনই হাজির যমদূত।

একজোড়া কাকের গল্প

টুনটুনি, বুলবুলিদের বাসা তৈরির শৈল্পিক কারুকাজ দেখেছি স্বচোক্ষে। আবার শালিক কিংবা চড়–ই পাখিদের অগোছালো বাসাও দেখেছি। কিন্তু কাকের মতো এমন ছন্নছাড়া বাসা আর দেখিনি

শিয়ালের রাহাজানি

শিয়ালকে কিছুদূর তাড়িয়ে দিয়ে আসে। ফিরে দেখে আরেকটা শিয়ালা তার ছানা নিয়ে পালাচ্ছে। ‌‌‌‘শুকরের গো’ বলে কথা! প্রাণপণে সে তখন এই শিয়ালটাকে ধাওয়া করে। ততক্ষণে আগে ধাওয়া খাওয়া শিয়ালটা ফিরে এসে আরেকটা ছানা নিয়ে পালায়। 

পাটের ফুল

ক্লান্ত-শ্রান্ত শরীরে হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরছিলাম। মন ভালো করে দিল কলাইয়েরে ফুল। খেয়ালই ছিল না, হেমন্ত এসে গেছে। কলাই ফুলের সৌন্দর্য্ ঝটকায় ফিরিয়ে নিয়ে গেল স্মৃতমেদুর ছেলেবেলিায়

বই রিভিউঃ তারেক অণুর পৃথিবীর পথে পথে

তারেক অণুর ‘পৃথিবীর পথে পথে’ নিছক ভ্রমণ কাহিনী নয়। ভ্রমণের সাথে আবেগ, মানবতা, ইতিহাস, শিল্পকলা, সাহিত্য একাকার হয়ে বাংলা ভ্রমণ সাহিত্যের অন্যতম সম্পদ হিসেবে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবার অপেক্ষায়।

ছদ্মবেশি রাতচরার খোঁজে

গ্রামের লোক একে বলে আতস পাখি। রাতে ওদের চোখ দিয়ে নাকি আগুন বেরোয়। এই ধারণা থেকে জন্মেছে ভয় ধরানো কত গল্প, কত কাল্পনিক কাহিনি!

সাদা স্বপ্নের খোঁজে

গাছ থেকে নেমে পিছু নিই পাখিটার। বড্ড চঞ্চল পাখি। আমার কৌতুহল মেটাতে তার বয়েই গেছে। আমিও ছাড়বার পাত্র নই।

আড়িয়ল বিলের মাঝিরা

‘মা যদি হও রাজি, বড় হলে আমি হব,খেয়াঘাটের মাঝি..’

রস গুড় ও গাছির গল্প

গাছি সেই গাছ ছেড়ে অন্যগাছে কাটতে চলে যায়। গাছির সহযোগী বা ছেলে এসে সদ্যকাটা গাছের গোঁজে আটকে দেয় ভাঁড় ।

আলোচিত পোস্ট


আজকের ছবি-২১-১১-১৭

আজকের ছবি-২১-১১-১৭

মঙ্গলবার, নভেম্বর ২১, ২০১৭