অনুভ্রমণ ডেস্ক

অনুভ্রমণ ডেস্ক

অনুভ্রমণ ডেস্ক

বই রিভিউঃ আমি কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখিনি

লেখকের দার্জিলিং ভ্রমণের মূল উদ্দেশ্য ছিল কাঞ্চনজঙ্ঘা দর্শন করা। ৮০০০ ফুট উচ্চতার টাইগার হিলে দাঁড়িয়ে তিনি কি পেরেছিলেন দেখতে কাঞ্চনজঙ্ঘাকে? নাকি সূর্যোদয় দেখেই তৃপ্ত হয়েছিলেন? টাইগার হিলের বিস্তারিত বর্ণনা পাওয়া যাবে “আমি কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখিনি” পর্বটিতে।

কোন পাখির শ্রবণশক্তি সবচেয়ে শক্তিশালী ?

তাদের সবচেয়ে বড় শারীরিক সক্ষমতা আসলে অতি নিখুঁত শ্রবণশক্তি! উদাহরণ স্বরূপ বলা যায় আমাদের চিরচেনা লক্ষী পেঁচার ( Tyto alba) কথা, তারা ঘুটঘুটে আঁধারেও দৃষ্টিশক্তির বিন্দুমাত্র সাহায্য না নিয়ে শতভাগ সাফল্য নিয়ে অতি দ্রুতগামী শিকার ধরতে সক্ষম।

লাস্ট ডেজ অফ পম্পেই পর্ব ২

চমৎকার রাস্তাগুলো বৃষ্টির জল নেমে যাবার জন্য সামান্য ঢালু করে তৈরি, সাথে ফুটপাতগুলোও। কিন্তু প্রায়ই রাস্তার মাঝখানে পড়ে থাকা বিশাল সব পাথর দেখে স্বাভাবিক ভাবেই মনে কৌতূহলের উদয় হল, এগুলো কিসের জন্য?

লাস্ট ডেজ অফ পম্পেই পর্ব ১

শহরটির এক দিকে অল্প দূরেই যেমন সমুদ্র, তেমনি অন্যদিকে আকাশের গায়ে হেলান দিয়ে ঘুমায় এক সবুজ পাহাড়। অরণ্য, পাহাড়, সমুদ্র মিলিয়ে অনেকটা পুরাণের স্বর্গ স্বর্গ আবহ এলাকার নিসর্গে।

মঙ্গলবাড়ির প্রাচীন মন্দির এবং গরুড় স্তম্ভ

মঙ্গলবাড়ি শিবমন্দির থেকে প্রায় ১৫০ মিটার দক্ষিণে অপেক্ষাকৃত নিচু স্থানে গরুড় স্তম্ভ নামের একটি উল্লেখযোগ্য প্রাচীন কীর্তি আছে। এটি সম্ভবত একটি মজে যাওয়া বিল, মানুষের তৈরি কোন জলাশয় নয়

দেশান্তরী প্রজাপতির ডানায় সারসের দেশে

হাইওয়ে ধরে যাবার পথে একবাসাতে তিনটি ধলা মাণিকজোড়ের ছানা দেখে কৌতূহল ভরে দাঁড়ানো হল, ভাগ্যিস দাঁড়িয়েছিলাম!

তোপকাপি প্রাসাদ, সুলতানের হারেম ও পিরী রইসের ম্যাপ পর্ব ৩

একের পর এক বিশাল বারান্দা , এক ফাঁকে যাওয়া হল সুলতানের দরবার কক্ষে, জাঁকজমকপূর্ণ তাকিয়া, মহামুল্য কাপড়ের পর্দা, আর স্মৃতির ধুপছায়া।

দিবর দীঘি এবং তার রহস্যে মোড়া স্তম্ভ

স্তম্ভটি সম্পূর্ণ গ্রানাইট পাথরে নির্মিত, এবং অবশ্যই নির্মাণের আগে আদি অবস্থায় এর ওজন বর্তমানের চেয়ে অনেক বেশী ছিল

মেঠো পথের লাজুক গুরগুরি ও আকাশের ঈগল

কী অপূর্ব একটা পাখি! দেখা মেলে না বলে তার পালকের চোখ ধাঁধানো সন্নিবেশন নজরে আসে না কখনো, আপন পরিবেশে একেবারে মাতিয়ে রাখল নানা অঙ্গিভঙ্গি করে! তবে খুবই লাজুক

তোপকাপি প্রাসাদ, সুলতানের হারেম ও পিরী রইসের ম্যাপ পর্ব ২

প্রচলিত গল্প মতে এক মৎস্যজীবী হীরেটি কুড়িয়ে পায় আবর্জনার মাঝে এবং এটাকে চকচকে কাঁচ মনে করেই পকেটে রেখে দেয়, পরে এক গহনার দোকানে দেখালে চতুর স্বর্ণকার মাত্র ৩টি চামচের বিনিময়ে হীরেটি হাসিল করে, যেখান থেকে এর নামে হয়েছে স্পুনমেকারস ডায়মন্ড।

তোপকাপি প্রাসাদ, সুলতানের হারেম ও পিরী রইসের ম্যাপ পর্ব ১

তোপকাপির সাথে সেই প্রথম পরিচয়, জানলাম মূলত অটোমান সুলতানদের প্রাসাদ ছিল সেটি, ৪০০ বছরেরও অধিক সময়। কোন এক ডিসেম্বরে আমরা দাঁড়ালাম সেই প্রাসাদ চত্বরে, সুরম্য অট্টালিকাটি এখনো আছে বসফরাসের আর মর্মর সাগরের পাড়ে,

নারীবিহীন সোনার চরে জলদাসদের অস্থায়ী আস্তানা (শেষ কিস্তি)

একাকী ছৈলা ফল ভেসে এসেছে সৈকতে, হয়ত একদিন এই ফলের বীজই বিশাল গাছে পরিণত হবে, সোনার চর আরেকটু স্থায়ী হবে বঙ্গোপসাগরের বুকে, আসবে জলদাসরা আবহমান কাল ধরে চলে আসা জীবনধারা মেনে।

নারীবিহীন সোনার চরে জলদাসদের অস্থায়ী আস্তানা (১ম কিস্তি)

বঙ্গোপসাগরের বুকে জেগে উঠেছে পাতলা ছিপছিপে এক চর, একেবারে নবীন নয় বালিমাটির এই ভূখণ্ড, লম্বা লম্বা সবুজ গাছ জানান দিচ্ছে কত চন্দ্রভুক অমাবস্যা এসে চলে গেছে মহাকালের বুকে তার আবির্ভাবের পরে

মথুরাপুরের রহস্যময় দেউল

এই দেউল একান্ত ভাবে বাংলার নিজস্ব- বাংলার পুরুষোচিত কৃষ্টির পরিচায়ক। বাংলার বাহির হইতে কোণ প্রভাবই ইহাকে স্পর্শ করে নাই।

চাপ নাম্বার ওয়ান

আরামের আবেশে চোখ মুদেই চাবিয়েই যাচ্ছি যেন অনন্ত কাল ধরে, মনে মনে আশা করছি তা যেন শেষ না হয়, ছুরি-কাঁটা-প্লেটের টুংটাং বোল চলছে সমান তালে,

আলোচিত পোস্ট


ঢাকার মগারা...!(তাজমহল ভ্রমণ)

ঢাকার মগারা...!(তাজমহল ভ্রমণ)

বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৩, ২০১৭

মরক্কোতে ভুরিভোজ

মরক্কোতে ভুরিভোজ

বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৩, ২০১৭

আজকের ছবি-২৩-১১-১৭

আজকের ছবি-২৩-১১-১৭

বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৩, ২০১৭