অনুভ্রমণ ডেস্ক

অনুভ্রমণ ডেস্ক

অনুভ্রমণ ডেস্ক

একদিনে ফেনী ভ্রমণের আদ্যপান্ত (চতুর্থ পর্ব)

সেনেরখিলের জমিদার উপেন্দ্র সেনগুপ্ত চৌধুরী ও মহেন্দ্র সেনগুপ্ত চৌধুরীর দুই পর্যায়ে এই বাড়ি নির্মাণ করেন।। এই বাড়িতেই স্মৃতি জড়িয়ে আছে ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলনের মহানায়ক মাষ্টারদা সুর্যসেন ও প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদারের অসংখ্য স্মৃতি।

সেন্ট যোসেফ ক্যাথলিক চার্চে এক বিকেল

এটি একটি ক্যাথলিক চার্চ যেখানে আছে খামার, খ্রিষ্টানদের কবরস্থান, মনুমেন্ট, ভাস্কর্য, খোলা মাঠ, গির্জা, গোলাপ বাগান, সিস্টারদের থাকার জায়গা, ফাদারের বাসভবন, লাইব্রেরী।

একদিনে ফেনী ভ্রমণের আদ্যপ্রান্ত (তৃতীয় পর্ব)

এ এলাকায় এক সময় হিন্দু জলদস্যুদের বিচরণ ছিল। ১৬৭০ সালে নোয়াখালী অঞ্চলে মোগল সাম্রাজ্যভুক্ত হওয়ার পর বারো ভূঞা নামে একদল মোঘল সদস্য এ নোয়াখালীতে আসেন। এদের মধ্যে একজন সেনাপতি দাগনভূঞা চৌধুরী এ জেলার শাসনকর্তা নিযুক্ত হন। সেই থেকে এ জায়গার নাম হয় দাগনভূঞা।

পতেঙ্গা সৈকতের ইতিবৃত্ত

সাগরের বুকে অস্তমিত সূর্যের ম্রিয়মান আলোর রূপ দেখতে, বিশুদ্ধ বাতাসে বুক ভরে নিঃশ্বাস নিতে কার না ভালো লাগে। সাগরের উত্তাল হাওয়া সাময়িকভাবে হলেও বুকের ভিতর জমে থাকা দীর্ঘশ্বাসের কষ্ট ভুলিয়ে দেয়।

অপরূপ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে একদিন

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়টি চট্টগ্রাম শহর থেকে প্রায় ২২ কিলোমিটার উত্তরে হাটহাজারী থানার ফতেহপুর ইউনিয়নের জোবরা গ্রামের পাহাড়ি সমতল ভূমির উপর অবস্থিত। এটি দেশের তৃতীয় বৃহত্তম পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়।

একদিনে ফেনী ভ্রমণের আদ্যপ্রান্ত (দ্বিতীয় পর্ব)

দিঘির একপাড়ে ভারত, অন্যপাশে বাংলাদেশের শেষ সীমানা! তারপর নো ম্যানস ল্যান্ড। নো ম্যানস ল্যান্ডেই পড়েছে শমসের গাজীর দিঘি। যদিও দিঘিতে নামতে আপত্তি নেই। 

বরফের আর সোনালী দেশে ভ্রমণ (পর্ব-১)

স্নিগ্ধ, সতেজ, সদ্য প্রস্ফুটিত সব ফুল। ছবিতে দেখতে পারবেন কিন্তু এর সুবাস পাবেন না। সারা বাগান জুরে মম করছে গন্ধ।প্রতিটি সারিতে এক রঙের সব টিউলিপ। সাদা, হলুদ, লাল ও খয়েরী।

পথে পথে পথশিল্প

নগরের সাধারণ জিনিসের মধ্যে তিনি চমৎকার পথশিল্প নকশা করেছেন। তিনি তার চারপাশের বিরক্তিকর জিনিসগুলোকে পুরোপুরিভাবে ব্যক্তিগত দৃষ্টিভঙ্গিতে রূপান্তরিত করেছেন।    

বৈচিত্র্যময় কেক

Elena Gnut-র ইনস্টাগ্রাম পেইজে ১৪০০০০ সাবস্ক্রাইবার রয়েছে। ৩১ বছর বয়সী এই নারী, কালিনিনগ্রাদের একজন প্যাস্ট্রি শেফ। তিনি অবিশ্বাস্য আকর্ষণীয় সব কেক তৈরি করেন। তার বানানো এমনই কিছু চমৎকার কেক নিয়েই আজকের আয়োজন।

একদিনে ফেনী ভ্রমণের আদ্যপ্রান্ত (প্রথম পর্ব)

বাংলার বিখ্যাত সেন বংশের প্রতিষ্ঠাতা বিজয় সেনের অমর কীর্তি ফেনীর বিজয় সিংহ দীঘি । এ দিঘির অবস্থান ফেনী শহরের প্রায় ২ কিলোমিটার পশ্চিমে ফেনী সার্কিট হাউজের পাড়ে।

তুষার শুভ্র গ্রীনল্যান্ড ও সবুজ আইসল্যান্ডের নামকরণের রহস্য

প্রচলিত উপকথা অনুসারে, এরপর সমুদ্রের ধারে কোনো এক পর্বতশীর্ষে আরোহণ করে সে। পর্বতের চূড়ায় দাঁড়িয়ে এক বিশাল বরফ খণ্ড নজরে আসে তার। রাগে ও হতাশায় নিঃস্ব সে তখন দ্বীপটির নাম বদলে নতুন নাম দেন আইসল্যান্ড।

আসামের জাতিংগাঃ কেন অমাবস্যায় আত্মহত্যা করে অজস্র পাখি!

প্রায় ১০০ বছর ধরে ভারতের আসামের জাতিঙ্গা গ্রামে হাজার হাজার পাখি বছরের একটা নির্দিষ্ট সময়ে আত্মহত্যাপ্রবণ হয়ে উঠে। তারা বছরের ওই নির্দিষ্ট সময়ে বিভ্রান্তের মত উড়তে থাকে এবং গাছপালা বা দেয়ালে বাড়ি খেয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে এবং আর উঠে না।

ইছামতী ও পদ্মা তীরের অপূর্ব ছয় স্থাপত্য কীর্তি

এই ভ্রমণে আমরা যা দেখেছি- কোকিল প্যারি জমিদার বাড়ি, উকিল বাড়ি, জজ বাড়ি, আন্ধার কোঠা, শ্রীলোকনাথ সাহার বাড়ি, ইছামতি নদী, হাসনাবাদ গির্জা, পদ্মা নদী।

নাপিত্তাছড়াঃ ঝিরিপথের ডাক

ঝিরিপথের সৌন্দর্য ফুরোয় না। এ যে বাঁধভাঙা। অনুভব করতে হয় প্রতিটি মুহূর্তকে। হয়তো পাথরের বুক বেয়ে বয়ে চলা জলের সারিতে এক ক্ষুদ্র শামুক। হয়তো শ্রাবণের অঝোর বর্ষণে পত্র পল্লবে তানপুরার তান ধ্বনি।  ঝিরিপথ এমনই।

একদিনে নোয়াখালীঃ অপূর্ব বজরা শাহী মসজিদ ও গান্ধী আশ্রম ভ্রমণ

মোঘল স্থাপত্যের এক অপূর্ব নিদর্শনের সাক্ষী ঐতিহাসিক বজরা শাহী মসজিদ।  মোগল সম্রাট মুহাম্মদ শাহের আমলে ১১৫৩ হিজরী সাল মোতাবেক ১১৩৯ বাংলা এবং ১৭৩২ সালে জমিদার আমানউল্যাহ বজরা শাহী মসজিদ নির্মাণ করেন। 

আলোচিত পোস্ট