ভ্রমণ মানেই রোমাঞ্চকর এক অভিজ্ঞতা। নতুনকে দেখা ও জানার আনন্দ সাথে বাঁধনহারা উত্তেজনা। নাগরিক জীবন থেকে বেড়িয়ে যিনি প্রথমবার পা ফেলছেন তার জন্য ব্যপারটা তো আরও রোমাঞ্চকর। বিভিন্ন দেশে ট্যুরিজম একটি জনপ্রিয় ব্যবসা। একে ঘিরে বিভিন্ন ধরনের প্রতারনা চক্র গড়ে ওঠে, তাই নতুন ভ্রমণকারীদের একটু বেশিই চোখ-কান খোলা রাখা জরুরী। আর অযাচিত বিপত্তি এড়াতে সবকিছু জেনেশুনে ভ্রমণ পরিকল্পনা করা উচিৎ। আসুন জেনে নিই অনভিজ্ঞ ট্রাভেলারদের ভ্রমণের ভুল গুলো সাধারনত কেমন হতে পারে।

পোশাক নির্বাচন

প্রথমবার ভ্রমণের বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আমরা পোশাক নির্বাচনেও ভুল করি। দেখা গেল এমন পোশাক নিয়ে গেলাম যেটা ওখানে কেউ পড়ছে না। তখন অস্বস্তিতে পড়তে হয়, নিজেকে একেবারে আলাদা লাগে। তাই ভ্রমণের জন্য সচেতনভাবে বাছাই করুন আপনার পোষাক।

অতিরিক্ত জিনিস বহন করা

না বুঝেই অনেক বেশী পোশাক, প্রসাধনী ও কম দরকারি জিনিস নিয়ে ফেলি কারণ তখন সব কিছুই দরকারি মনে হতে থাকে। মনে হয়, এটা তো ওখানে পাব না কিংবা যদি দাম বেশি থাকে! লোশন, টুথপেস্ট বড় টিউব না নিয়ে ছোট কৌটায় নিলে অনেক কম জায়গা লাগে ব্যাগে, এমন অনেক ব্যাগ গোছানোর কৌশল আছে যা আপনার ব্যাগকে ছোট ও সহজে বহনযোগ্য করবে। না জানার কারণে আমরা অনেকেই অপ্রয়োজনীয় জিনিস দিয়ে ব্যাগ বড় করে ফেলি।

আবহাওয়া

দেশে দেশে আবহাওয়ার বৈচিত্রতা লক্ষ্য করা যায়, এর কারণ মূলত ভৌগলিক অবস্থান ও জলবায়ু। যেমন- আমাদের বিপরীত মেরুর দেশগুলোতে আবহাওয়াও হয় বিপরীত। আমাদের এখানে যখন গ্রীষ্ম সেখানে তখন হয়ত তুষারপাত হচ্ছে, আবার পাশাপাশি দেশেও আবহাওয়ার পার্থক্য হয়। যেমন- আমাদের দেশের শীত আর ইন্ডিয়ার দার্জিলিং এ একই সময়ে একই রকম শীত পড়ে না। ইন্ডিয়ায় শীত অনেক বেশী। তাই ভ্রমণের ক্ষেত্রে অবশ্যই আবহাওয়ার ব্যাপার মাথায় রাখা জরুরী।

বিভ্রান্ত হওয়া

নতুন কোন এলাকায় গেলে আমরা সহজেই বিভিন্ন রকম তথ্য দ্বারা বিভ্রান্ত হই। প্রায়শই দেখা যায় একই জায়গায় ভ্রমণের একেক রকম তথ্য দেওয়া থাকে। কারো কাছে পাহাড়ে ভ্রমণ করা কোন ব্যাপার নয়, আবার কারো কাছে আবার খুবই কঠিন কাজ। কেউ অনেক স্বস্তায় ভ্রমণ করেছেন তাই সবাইকে বলেন যে ঐখানের খরচ কম। আবার কেউবা পরিবার নিয়ে একই জায়গায় গিয়ে বলছেন তার খরচ হয়েছে অনেক বেশী। তাই আগে থেকে সব কিছু খোঁজ খবর নিয়ে যাওয়াই ভালো।

প্রয়োজনীয় জিনিসের কথা ভুলে যাওয়া

প্রয়োজনীয় কোন জিনিস নিতে ভুলে যাওয়া কিংবা ভ্রমণকৃত জায়গায় কোন জিনিস ফেলে আসা এটা নতুন ট্রাভেলারদের জন্য একটা সাধারণ ঘটনা। প্রয়োজনীয় কি কি জিনিস আপনার সাথে নিতে হবে তার একটা লিস্ট করে ফেলুন এবার ভ্রমণে যাবার সময় ও ফিরে আসার সময় লিস্ট চেক করে জিনিসগুলো ব্যাগবন্দী করুন। দেখবেন আর কোন জিনিসের কথা ভুলে যাবেন না।

বেশী খরচ করে ফেলা

প্রথমবার ভ্রমণের ক্ষেত্রে বাজেট নিয়ন্ত্রন করা একটু কঠিন। কারণ বেশীরভাগ জায়গাতেই হোটেল ভাড়া ও যাতায়াত ভাড়া দরদাম করে ঠিক করতে হয়। অভিজ্ঞতা না থাকলে বা যার সাথে দরদাম করছেন সে যদি বুঝে ফেলে আপনি নতুন এসেছেন তখন অনেক ক্ষেত্রেই ঠকতে হয়। খাবারেও অনেক খরচ হয়ে যায় কারণ কম খরচে ভাল খাবারের হোটেলের খোঁজ থাকে না আমাদের বেশীরভাগের কাছেই।

তাড়াহুড়ো করা

ভ্রমণে সবসময় সবকিছু একবারে দেখে ফেলার একটা তাড়না মনে কাজ করে। যদি আর আসা না হয় কিংবা মাত্র তো কয়েকদিনের জন্য এসেছি, এমন একটা চঞ্চলতা আচ্ছন্ন করে রাখে। এতে কোন জায়গাই আর শান্তিমত দেখা হয়ে উঠে না। ফলে অনেক সময় ভ্রমণ শেষে রিল্যাক্স হওয়ার বিপরীতে আমরা আরও স্ট্রেসড হয়ে যাই। অনেকে আবার ভ্রমণের ধকল সইতে না পেরে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাই ভ্রমনে কোন তাড়াহুড়া নয়, আপনার সময় অনুযায়ী ভ্রমণের পরিকল্পনা করুন।

 

বিদেশ ভ্রমণকে অনেকে এক ধরনের বিলাসিতা বলে মনে করেন। নতুন নতুন জায়গা দেখা ওই সব জায়গা সম্বন্ধে জানার আগ্রহ আপনার আমার সবারই আছে। আর তাই ভ্রমণ এর ব্যাপারে একটু সাবধান থাকাটা উচিৎ।

তবে কিছু ছোটখাটো ভুল আপনার সব আনন্দ মাটি করে দিতে পারে। আর তাই ভ্রমণের সময় কয়েকটি বিষয়ে খেয়াল রাখুন।

গরমে সাবধান

গরমের দেশের বাসিন্দা হিসেবে সূর্যরশ্মির তীব্রতার সঙ্গে আমরা পরিচিত। তবে সমুদ্র সৈকতে সূর্যের তেজ থাকে আরও বেশি। আর আমাদের দেশের মতো বাতাসে আর্দ্রতার মাত্রাও থাকে কম। তাই রোদে বের হলে মাথা ও চোখ ঢাকতে ভুলবেন না। আর সেই সঙ্গে মনে করে ব্যাগে পুরে নিন সানস্ক্রিন।

সব সময় চেষ্টা করুন ছায়াঘেরা কোনো জায়গায় থাকতে। আরামদায়ক পোশাক পড়ুন, চোখে রাখুন সানগ্লাস এবং মাথায় চওড়া টুপি। ত্বকে এমন সানস্ক্রিন লাগান যা পানিতেও ধুয়ে যাবে না।

আর যদি রোদে ত্বক পুড়েই যায়, তাহলে খেয়াল রাখবেন ক্ষতিগ্রস্ত জায়গাগুলোতে আর যেন রোদ না লাগে। ত্বকে ময়েশ্চারাইজার কিংবা অ্যালোভেরা লোশন লাগান, সঙ্গে প্রচুর পানি পান করুন। যদি খুব বেশি খারাপ অবস্থা হয়, তাহলে দেরি না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

নিয়ন্ত্রন করুন নিজেকে

ছুটি কাটানোর উদ্দেশ্য নিয়ে যখন ঘর থেকে বের হবেন, তখন মন ফুরফুরে থাকবে এটাই স্বাভাবিক। বিশেষ করে যদিও দেশের বাইরে যাওয়ার সময় উড়োজাহাজে এটা সেটা খাওয়ার লোভ অনেকেই এড়াতে পারেন না। মনে রাখবেন দীর্ঘ বিমানে কাটানোর ফলে আপনার পানিশূন্যতা হতে পারে। তাই খাওয়ার বেলায় যেমন সংযমী থাকবেন, তেমনি একটু পর পর পানি পান করতে ভুলবেন না।

বিশুদ্ধ পানির বিকল্প নাই

ঘরে আমরা পানি ফুটিয়ে কিংবা ফিল্টারে পরিশোধন করেই খাই। বিদেশে চলার পথে পিপাসা পেলে হয়ত রাস্তার পাশের ট্যাপের পানি অনায়াসে খেয়ে নিচ্ছেন। কিন্তু ভেবে দেখুন তো, পানিটা বিশুদ্ধ তো?

উন্নত দেশগুলোর পরিষ্কার রাস্তাঘাট দেখে অনেকেই ভাবেন ওদের কলের পানিও খাওয়া যাবে নিশ্চিন্তে। সেই পানি স্থানীয় বাসিন্দাদের পেটে সয়ে গেলেও অতিথিদের জন্য ডেকে আনতে পারে ডায়রিয়ার মত পানিবাহিত রোগ। কিছু কিছু ক্ষেত্রে এসব পানির উৎস থেকে হতে পারে হেপাটাইটিস এ এবং সি, আমাশয়, টাইফয়েড এমনকি কলেরা।

রাস্তার পাশের খাবার খাওয়ার বেলায়ও সতর্ক থাকুন। ভাবছেন বাঙালির পেটে সব সইবে! কিন্তু ঝুঁকি কেন নেবেন?

সময়মত বিমানবন্দরে

ছুটির আনন্দ পুরোপুরি উপভোগ করতে একটু আগেই পৌঁছান বিমানবন্দরে, যেন বিমানে ওঠার আগে হাতে কিছুটা সময় থাকে। ভাল সময় কাটাতে যাচ্ছেন, কিন্তু ট্রাফিক জ্যাম কিংবা ইমিগ্রেশনের লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে যদি আগেই বিরক্তি ধরে যায়, তাহলে কেমন হবে বলুন তো?

দেরি করে এসে তাড়াহুড়ো করে যদি শুরু করেন ছুটির যাত্রা, তাহলে কিন্তু গোঁড়ায় গলদ রয়ে যাবে। বেশিরভাগ এয়ারলাইন্সের নিয়ম অনুযায়ী ফ্লাইটের অন্তত দু’ঘণ্টা আগে বিমানবন্দরে পৌঁছাতে হয়। যদি যাত্রা পথে বিমান বদলের প্রয়োজন পড়ে, সেক্ষেত্রে সতর্ক থাকুন, যেন বিমান আপনাকে রেখেই চলে না যায় কিংবা উড়াল দেয়ার সময় দেরি হলেও সমস্যা না হয়।

পাসপোর্ট নিরাপদে রাখুন

বিদেশে ছুটি কাটাতে গিয়ে সবচেয়ে নিরাপদে যা রাখা উচিৎ তা হলো পাসপোর্ট। যদি কোনো কারণে আপনার পাসপোর্ট হারিয়ে কিংবা চুরি হয়ে যায়, যত দ্রুত সম্ভব নিজের দেশের দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। পাসপোর্ট স্ক্যান করিয়ে একটি কপি নিজের ইমেইলে রেখে দিন, তাহলে পাসপোর্ট হারিয়ে গেলেও তোলা সহজ হবে। পাসপোর্টের ছবি তুলে রাখুন।

প্রথমবার ভ্রমণে এইধরনের ভুল হওয়া খুবই স্বাভাবিক তবে সবচেয়ে ভাল হয় আপনি যে জায়গাতে যাবার প্ল্যান করছেন সে জায়গায় আগে গিয়েছেন এমন কেউ কিংবা অভিজ্ঞ কারও কাছ থেকে আগেই তথ্য সংগ্রহ করা। আজকাল ইন্টারনেটে অনেক তথ্য পাওয়া যায় যা আপনার ভ্রমণকে সহজ করে তুলবে অনায়াসেই। সুতরাং ভ্রমণে থাকুক শুধুই আনন্দ, দুশ্চিন্তা কিংবা দোটানা নয়।

 

কৃতজ্ঞতাঃ যমুনা নিউজ , চারপাশে