কম্বোডিয়া ও লাওসের ভিসার জন্য বাংলাদেশী নাগরিকদের যা যা করনীয়- এই দুই দেশের ভিসা নিতে হবে ব্যাংককে অবস্থিত দুই দেশের অ্যাম্বাসী থেকে, কাজেই ধরে নিচ্ছি আপনার থাইল্যান্ডের ভিসা আছে, না হলে করিয়ে নিবেন। যদি সিঙ্গেল এন্ট্রি ভিসা থাকে তাহলে ব্যাংকক যেয়েই ডাবল এন্ট্রি ভিসা করিয়ে নিতে হবে নতুবা কম্বোডিয়া ও লাওসের ভিসা নাও মিলতে পারে।

থাইল্যান্ডের ডাবল এন্ট্রি ভিসার জন্য করনীয়- ছবি, পাসপোর্টের ফটোকপি, ডিপারচার কার্ডের ফটোকপি নিয়ে এই ঠিকানায় যাবেন the govt immigration office bldg b, at chaengwattana, laksi, soi 7. সেই সাথে ১০০০ থাই বাথ প্রতিবারের ডাবল এন্ট্রি ভিসার জন্য। এই অফিস আপনার সমস্ত কাগজ দেখে একটা আবেদনপত্র দিবে, যা পূরণ করে জমা দিলে ১-২ ঘণ্টার মধ্যেই থাইল্যান্ডের ডাবল এন্ট্রি ভিসা পেয়ে যাবেন।

কম্বোডিয়া ও লাওসের ভিসার জন্য আপনাকে আগেই বিমানের টিকেট কাটতে হবে , নিদেনপক্ষে রিজার্ভেশনে কনফার্ম লিখে নিয়ে যেতে হবে, ১০০ বাথ দিলেই সেটি ব্যাংককের ট্রাভেল এজেন্সিরা করে দিবে। থাইল্যান্ড থেকে দুই দেশেই স্থল পথে যাওয়া যায়, এমনকি নৌ পথেও, কিন্তু বাংলাদেশী নাগরিকদের জন্য ব্যাপারটি অনেক ঝামেলার, এবং অনেক সময়ই তাদের অনুমতি দেওয়া হয় না স্থল পথে প্রবেশের। কাজেই ঝুঁকি আপনার।

কম্বোডিয়ার ভিসার জন্য— পাসপোর্ট, ছবি, বিমান টিকেট, ১০০০ বাথ সহ নিচের ঠিকানায় উপস্থিত হবেন সকাল বেলা, যত তাড়াতাড়ি পারেন ৮টার দিকে-- Cambodian Embassy in Thailand 518/4 Soi Ram Kham Ngae 39, Pracha Uthit Road, Wang Thonglang, Khet Wang Thonglang, Bangkok সব জমা দিলে হয়ত ১-১.৫ ঘণ্টার মাঝে ভিসা পেয়ে যাবেন।

লাওসের ভিসার জন্য— লাওসের অ্যাম্বাসী কম্বোডিয়ার অ্যাম্বাসীর পাশেই, মিনিট দুয়েকের হাঁটা দূরত্ব, কাজেই একটু সকাল বেলা গেলে আপনি একই দিনে দুই দেশেরই ভিসা করিয়ে নিতে পারবেন। পাসপোর্ট, ছবি, বিমান টিকেট, ৭০ ডলার বা সমপরিমাণ থাই বাথ সেখানে জমা দিলে ১-২ ঘণ্টার মাঝে ভিসা পেয়ে যাবেন। তবে লাওস অ্যাম্বাসীতে ক্রেডিট কার্ড দেখতে চায় অনেক সময়, কাজেই সাথে থাকলে অবশ্যই নিয়ে যাবেন।