আপনি কি পরবর্তী অ্যাডভেঞ্চারের জন্য গন্তব্য খুঁজছেন? আমরা আপনাদের জন্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশের তালিকা সংগ্রহ করেছি, যেখানে আপনি নতুন পথ বেঁছে নিতে পারবেন, স্থানীয় খাবারের স্বাদ গ্রহণ এবং বিচিত্র বন্যপ্রাণীদের জীবন উপভোগ করতে পারবেন।

ভিয়েনা, অস্ট্রিয়া

 PHOTOGRAPH BY LUCAS VALLECILLOS, REDUX PHOTOGRAPH BY LUCAS VALLECILLOS, REDUX

কেন যাবেনঃ স্বাধীন শিল্প আন্দোলন উদযাপন দেখতে।

ভিয়েনার উত্থানমূলক স্বাধীন শিল্প আন্দোলনের তিনজন প্রধান সদস্য- গুস্তাভ ক্লিমট, কলোমন মোজার এবং ওটো ওয়েগনার ১৯১৮ সালে মারা যান। শতবার্ষিক নিদর্শন করার জন্য বেলভেডার, লিওপোল্ড, ম্যাক এবং অস্ট্রিয়ায় শিল্প-নিপীড়িত রাজধানী শহরের অন্যান্য জাদুঘর বিশেষ বিচ্ছিন্নতাবাদী প্রদর্শনের আয়োজন করবে।

মজার ব্যাপারঃ ভিয়েনা বিশাল স্বাধীন ভবনটি ক্লিমটের সেরা শিল্পঃ সাত ফুট লম্বা এবং ১১২ ফুট দীর্ঘ বিথোভেন ছাদের কারুকার্য।    

উত্তর উপকূল, ওহু, হাওয়াই

 PHOTOGRAPH BY RYAN MOSS PHOTOGRAPH BY RYAN MOSS

কেন যাবেনঃ স্থানীয় কৃষক এবং গ্রাম্য জীবনকে সহায়তা করার জন্য।

উত্তর উপকূল ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ক্রমবর্ধমান হ্যানলুলুর গ্রাম্য প্রতিবেশী, এটি তার বিশাল তরঙ্গের জন্য বিশ্ব বিখ্যাত। স্থানীয় খামার, যেমন-পামোহো এবং কাহুকু  আভ্যন্তরীণ ফসল ও কৃষিবিষয়ক অভিজ্ঞতার মাধ্যমে "দেশটিকে বাঁচিয়ে রাখুন" (সর্ববৃহৎ প্রচুর শস্য সম্পদ রাষ্ট্র হিসাবে) সাহায্য করছে। ওহু সম্পর্কে আরও জানতে চাইলে এখানে ভ্রমণ করুন।

মজার ব্যাপারঃ উত্তর উপকূলের মহালা খামার, অতিথিদেরকে কাজের বিনিময়ে আবাসস্থল দিয়ে থাকে।

মালমো, সুইডেন

 PHOTOGRAPH BY KEVIN BOUTWELL PHOTOGRAPH BY KEVIN BOUTWELL

কেন যাবেনঃ বিশ্বের খাদ্যের স্বাদ আস্বাদন করতে।

আকর্ষণীয় মানুষ এবং সংস্কৃতির জন্য সুইডেন সারাবিশ্বে পরিচিত। একটি প্রাণবন্ত ছুটি কাটানোর জন্য মালমো শহর একটি আদর্শ স্থান। ঐতিহাসিক শহরটি সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যে পরিপূর্ণ। প্রায় ১৮০টি জাতীয়তা এবং ৪৫০টিরও বেশি রেস্টুরেন্ট নিয়ে সুইডেনের তৃতীয় বৃহত্তম শহরটি খাদ্যের একটি জাতিসংঘ।

মজার ব্যাপারঃ সুইডেনের অধিবাসীরা কফি এবং দারুচিনির মিষ্টি রুটি খেতে খুবই পছন্দ করে।

জর্ডান ট্রেল

 PHOTOGRAPH BY YADID LEVY PHOTOGRAPH BY YADID LEVY

কেন যাবেনঃ একটি নতুন বিখ্যাত ঐতিহাসিক পথে আরোহণ করা।

৪০০ মাইল জর্ডান ট্রেল হল একটি নতুন আবিষ্কার করা হাইকিং পথ যা প্রাচীন বাণিজ্য পথগুলিকে সংযুক্ত করে। আটটি পৃথক বিভাগে বিভক্ত, পথটি জর্ডানের বন, ক্যানিয়ন, মরুভূমি এবং লোহিত সাগরের তীর বরাবর অতিক্রম করেছে। রাতে থাকার জন্য গেস্ট হাউস, বাড়ীতে বাস এবং যাযাবর ক্যাম্পিং স্থাপনের ব্যবস্থা আছে।

মজার ব্যাপারঃ অনেকেই বিশ্বাস করেন যে, এই পথ দিয়ে যীশু, মূসা এবং মোহাম্মদ হেঁটেছিলেন।

ডাবলিন, আয়ারল্যান্ড

 PHOTOGRAPH BY BERND JONKMANNS, REDUX PHOTOGRAPH BY BERND JONKMANNS, REDUX

কেন যাবেনঃ ‘ ইউরোপের সবচেয়ে বড় গ্রামের’ বাড়ী অনুভব করতে।

আয়ারল্যান্ডের অভ্যন্তরীণ রাজধানী ডাবলিনে প্রায় ১.২ মিলিয়ন মানুষের বাড়িতে একটি বন্ধুত্বপূর্ণ  গ্রাম্য পরিবেশ বিরাজ করে। ডাবলিনের ঐতিহাসিক স্কয়ার, আরামদায়ক মদের দোকান এবং বিশ্ব প্রযুক্তির সম্পদের চারপাশে ঘুরে দেখার সময় মনে হবে যেন আয়ারল্যান্ডের নতুন আইরিশ অভিবাসনের জাদুঘর এবং ন্যাশনাল গ্যালারী পুনঃসংস্কার।

মজার ব্যাপারঃ আইরিশ জনসংখ্যার এক-তৃতীয়াংশ লোক ২৫ বছরের নিচে।

চলবে.... 

ছবি ও তথ্য সংগ্রহঃ ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক এবং ইন্টারনেট

২০১৮ সালে যেসব স্থানে ভ্রমণে যাবেন (পর্ব-১)