বাংলার পথে

বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ মুন্সি আব্দুর রউফের সমাধি

পার্বত্য চট্টগ্রামের বুড়িঘাট গ্রামে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সঙ্গে সম্মুখ সমরে ১৯৭১ সালের ১৮ এপ্রিল তিনি মর্টারের আঘাতে শহীদ হন। তাঁকে রাঙামাটি জেলার নানিয়ারচর উপজেলায় একটি টিলার ওপর সমাহিত করা হয়।

শ্যামসিদ্ধির মঠ, শ্রী নগর, মুন্সীগঞ্জ।

প্রায় ২৪৭ বছরের পুরানো এই মঠটি বিক্রমপুরের ধর্নাঢ্য ব্যক্তি সম্ভুনাথ মজুমদার তার পিতার স্মৃতি রক্ষার্থে নির্মান করেন। 

গারো পাহাড়ের পাদদেশে

ছবির জায়গাটি হচ্ছে গোপালপুরের গারো পাহাড়, ইহা পড়েছে নেত্রকোনায়। দূরে দেখা যায় মেঘালয়া

পাল রাজার প্রাসাদে

প্রাসাদ ভবনের ইট-সুরকি আর কাঠের ফালিগুলো চেনা দায়! সময়ের পরিক্রমায় ক্ষয়ে যাওয়া ইট-পাথর-কাঠ হারিয়েছে জৌলুস। বট-পাকুড়-অর্কিড পরগাছারা দালানের ক্ষয়ে যাওয়া ফাঁকফোকর দিয়ে নিজেদের অস্তিত্ব জানান দিচ্ছে।

পদ্ম বিল-করপাড়া,গোপালগন্জ

দূর থেকে মনে হবে যেন ফুলের বিছানা পেতে রেখেছে কেউ। প্রতিদিনই এ সৌন্দর্য উপভোগ করতে আসছে দর্শনার্থীরা!

পঞ্চগড়:-রকস মিউজিয়াম...

পঞ্চগড় অঞ্চলের নব্যপ্রস্তর যুগের হাতিয়ার উপকরন আবিষ্কৃত না হলেও মসৃন ও অমসৃণ শিলা পাওয়া যায়।এইসব শিলা খন্ড প্রাচীনকালে সেতুতেও ব্যবহৃত হয়েছে

মুন্সিগন্জ:-বাবা আদমের মসজিদ...

বাবা আদম মসজিদ বাংলাদেশের মুন্সীগঞ্জ জেলায় অবস্থিত একটি প্রাচীন মসজিদ, যা পঞ্চদশ শতাব্দীতে নির্মিত

পাতরাইল মসজিদ

প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী আউলিয়া খান জামে মসজিদ যা ১৩৯৩ হতে ১৪১০ খ্রিঃ মধ্যে গিয়াসউদ্দিন আজম শাহ নির্মাণ করেন বলে ধারণা করা হয়।

মহেড়া জমিদার বাড়ি

পুরান বাড়ি আমরা ঘুরতে যাই কিন্তু এর পিছনের ইতিহাস নিয়ে আমরা কত জন ঘাটাঘাটি করি। মহেড়ার জমিদাররা ছিল শাহা বংশের। বংশীয় ভাবে বনেদী ব্যবসায়ী

রাণী ময়নামতির প্রাসাদ

একটি বৌদ্দ মন্দিরের ৪টি নির্মাণ যুগের স্থাপত্য কাঠামো উন্মোচিত হয়। খননের সময় এখান থেকে বেশ কিছু পোড়ামাটির ফলক ও অলংকৃত ইট আবিষ্কৃত হয়েছে।

তিন নদীর মিলনমেলায়

শীতের সকালের কাঁচা সোনা রোদ গায়ে মেখে আমাদের বাহন ছুটে চলেছে খরস্রোতা পাহাড়ি নদীর দেশ জকিগঞ্জের উদ্দেশে। এক পাশে সমতল ভূমিতে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানো সুপারি বাগান, অন্য পাশে স্রোতস্বিনী সুরমা

ষাইট্টার ৫০০ বছরের পুরানো বট গাছ...

বটগাছটি রহস্যেঘেরা। কয়েক বছর আগে গ্রামের কানু মিয়া নামে এক ব্যক্তি এ গাছের ডাল কাটার পর অসুস্থ হয়ে মারা যান। অনেকে বলছেন রাতের আঁধারে গাছটির ডালপালায় কয়েকশ শিশু নাচগান করে

মুহুরী প্রজেক্টের মুগ্ধতায়

মুহুরী প্রজেক্ট দেখতে অনেকটা লেকের মতোই। এখানে পর্যটকদের জন্য বাহারি সব নৌকায় নৌবিহারের সুযোগ রয়েছে। পর্যটকদের অনেককেই নৌকায় করে ঘুরে বেড়াতে দেখলাম।

বন পাহাড়ের বুবারথল

পথের ধারে দেখা মেলে নানা জাতের বুনো ফুলের। হঠাৎ টকটকে লাল এক জাতের ফুলে চোখ আটকে যায়। লতাপাতার ঘন বুনোট ভেদ করে ফুলটি চোখে পড়েছে। সৌরভ জানাল এটা অশোক ফুল।

আলোচিত পোস্ট


বিশ্বের কিছু অদ্ভুত জাদুঘর

বিশ্বের কিছু অদ্ভুত জাদুঘর

সোমবার, ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০১৮

কাজিরাঙ্গার অপার্থিব ভোর

কাজিরাঙ্গার অপার্থিব ভোর

সোমবার, ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০১৮

নান্দনিক মাটির ঘর

নান্দনিক মাটির ঘর

সোমবার, ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০১৮

মেরুজ্যোতির আলোয় স্নান

মেরুজ্যোতির আলোয় স্নান

সোমবার, ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০১৮

মুসৌরির ধবল দিনরাত্রি

মুসৌরির ধবল দিনরাত্রি

সোমবার, ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০১৮

বাল্টিকের দেশগুলো (পূর্ব ইউরোপ)

বাল্টিকের দেশগুলো (পূর্ব ইউরোপ)

সোমবার, ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০১৮

আজকের ছবি-১৯-০২-১৮

আজকের ছবি-১৯-০২-১৮

সোমবার, ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০১৮