বাংলার পথে

বিরুপাক্ষ,চন্দ্রনাথ পাহাড়

অনন্য সুন্দর চন্দ্রনাথ পাহাড়েই অবস্থিত চন্দ্রনাথ মন্দির যাহা সনাতন ধর্মালম্বীদের পবিত্র তীর্থ স্থান

ভিমরুলীর ভাসমান পেয়ারা বাজার...

সবচেয়ে আকর্ষনীয় যে জিনিষটি অনেক দিন মনে থাকবে তা হল ফ্লোটিং মার্কেট বা ভাসমান বাজার! পানিপ্রধান অঞ্চল বলে স্বভাবতই এখানকার জীবনযাত্রায় নৌকার ভুমিকা খুব বেশী

গোমতী নদীর পাড়ে!

এটি আঁকাবাঁকা প্রবাহপথে কুমিল্লা শহরের উত্তর প্রান্ত এবং ময়নামতির পূর্ব প্রান্ত অতিক্রম করে দাউদকান্দিতে মেঘনা নদীতে মোট ৯৫ কিমি সর্পিল পথ পাড়ি দিয়ে মিলিত হয়েছে।

কুমিল্লার ঐতিহ্যবাহী ধর্মসাগর

যা কুমিল্লা শহরবাসীদের অন্যতম বিনোদনের জায়গা। এটি আসলে প্রায় ২৩ একরের প্রাচীন দিঘি, যার উত্তর কোণে রয়েছে রাণীর কুঠির, পৌরপার্ক ।

অভিজ্ঞতা-কুকরি মুকরি

১ ঘন্টা ইঞ্জিনের নৌকায় মজা করতে করতে যাওয়ার পর আমরা কুকরির শেষ মাথায় চলে আসলাম। এখন সমুদ্র পারি দিতে হবে( এই সাইডের সমুদ্রে নিচে চর থাকার জন্যে একটু শান্ত। উত্তাল না অনেক)

বালিয়াটি জমিদার বাড়ি

গাবতলী থেকে এস বি লিংকে বালিয়াটি পর্যন্ত ভাড়া ৮০ টাকা এর পর বালিয়াটি থেকে জমিদার বাডি মিনিট তিনেক হাটা পথ অথবা গাবতলী থেকে সাটুরিয়া পর্যন্ত ভাড়া ৭৫ টাকা , ওখান থেকে জমিদার বাড়ি ১০ টাকা অটো

আমের রাজধানী চাঁপাই নবাবগঞ্জ.

কানসাটেই সম্ভবত বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় আমের হাট। এখানে যত দূর চোখ যায়, দেখবেন আমের বেচাকেনা। ফজলি, ক্ষীরসাপাত, ল্যাংড়া, গোপালভোগ, বোম্বাই, লক্ষ্মণভোগ, ফনিয়া, হিমসাগরসহ শত শত প্রজাতির আম

বাংলার তাজমহল ও মিশরের পিরামিড।

পিরামিড এর ভিতর ঢুকলে কিছু মমি করা ডামি লাশও দেখতে পারবেন যাতে আপনি মমি ও মিশরীয় সংস্কৃতি সম্পর্কে ধারনা পাবেন,

সাজেক ট্যুর প্লান ( দুই দিনের জন্য)

সাজেকের সাথে আরও কিছু জায়গা ঘুরেন, যেগুলা হচ্ছে, ১। হাজাছড়া ঝর্না ২। রিসাং ঝর্না, ৩। আলুটিলা কেইভ।

বিছানাকান্দি, সিলেট।

নৌকা মালিক সমিতি ধান্দা করে ১৫৫০ টাকা করে নৌকা ভাড়া ঠিক করেছে। আপনার ইচ্ছে করলে নৌকা ঘাটে যাবার আগে তিন চারটে টিম এক সাথে যাবেন। ভুলেও ওদের বুঝতে দিবেন না।

দিঘীর নাম আলতা

প্রাচীন দীঘিগুলির মধ্যে এটিই বোধ হয় বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ সচল দিঘী। উল্লেখ্য বিশাল দিঘী রামসাগরের দৈর্ঘ্য এটির চেয়ে ১৫০ মিটার বেশি হলেও চওড়ায় ১৫০ মিটার কম

পদ্মার জীবন্ত ইলিশ...(ভিডিও)

খুব ইচ্ছা ছিল জীবন্ত ইলিশ মাছ দেখার।অনেক চেষ্টা করেও ইচ্ছাটা পূরন হচ্ছিল না।জীবন্ত ইলিশ দেখতে হলে ইলিশ মাছ ধরার জেলেদের নৌকায় যেতে হবে তাদের সাথে

হাজারিখিল গেম লাইফ সেংচুয়ারি

তারপর গিড়িপথ,ঝরনা,৯০ডিগ্রি খাড়া পাহাড় সব কিছু দেখে নিলাম। প্রায় ৮ ঘন্টা ট্রেকিং করলাম। ঝরনার দিকে পাতার ভিতরে সাপটা দেখার পর সবাই যে চিৎকার দিলো, চিৎকার এর ফিল টাই অন্যরকম ছিলো

গহীন জলাবন: রাতারগুল

মূর্তার ঝাড়ের মধ্যখান দিয়ে ঝোপ কেটে কেটে নৌকা চলতে শুরু করলো। চেঙ্গীর খাল পার হয়ে এবার আসল রাতারগুলে ঢুকে গেলাম। এরপর আর কথাবার্তা নাই, রুদ্ধশ্বাসে, বিমুগ্ধ নয়নে, বিষ্ময়ে চুপ হয়ে যাবেন জাস্ট।

আলোচিত পোস্ট


অ্যান আমেরিকান ড্রিম - ৮

অ্যান আমেরিকান ড্রিম - ৮

শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৮

অ্যান আমেরিকান ড্রিম - ৭

অ্যান আমেরিকান ড্রিম - ৭

বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ৬, ২০১৮

অ্যান আমেরিকান ড্রিম - ৬
অ্যান আমেরিকান ড্রিম - ৫
অ্যান আমেরিকান ড্রিম- ৪

অ্যান আমেরিকান ড্রিম- ৪

শনিবার, আগস্ট ১১, ২০১৮