ঘুরে আসলাম গোলাপগ্রাম! ঢাকার খুব কাছেই সাভারে অসাধারন একটি বিকেল কাটানোর জায়গা গোলাপ গ্রাম! সাদুল্লাপুর,বিরুলিয়ার এই পুরো গ্রামটিতেই গোলাপের চাষ হয়! গ্রীষ্ম, বর্ষা, শীত সব ঋতুতেই চলে গোলাপ চাষ! আপনি যদি মিরপুর দিয়াবাড়ি বটতলা ঘাট থেকে ট্রলারে করে তুরাগ নদী দিয়ে যান তাহলে তুরাগ নদীর বুক চিরে যাওয়ার সময়ের পথটুকুও মনোমুগ্ধকর! অথবা গাড়ি নিয়ে যেতে পারেন! মিরপুর বেড়িবাঁধ থেকে বিরুলিয়া ব্রীজ পার হয়ে একটু সামনে গেলেই গোলাপগ্রাম!

গোলাপগ্রাম

গোলাপগ্রামে ঢুকে গাড়ি থেকে নেমে পুরো গ্রাম হেঁটে হেঁটে দেখলে বেশি ভালো লাগবে! যেদিকে তাকাবেন শুধু গোলাপের বাগান আর বাগান ভর্তি গোলাপ! তাছাড়া গ্রামটাও খুব সুন্দর! গ্রামের রাস্তা ধরে হাটতেও ভালো লাগে! প্রতিদিন বিকেলে গোলাপ বাগান থেকে গোলাপ তোলা হয়! প্রতিদিন সন্ধ্যার পরে গোলাপগ্রাম এর বাজারে গোলাপের হাট বসে! সন্ধ্যার পর থেকে হাটে গোলাপ আসা শুরু করে! সন্ধ্যা ৭টার মধ্যে পুরো বাজার গোলাপে ভরে যায়! বাজারের চারপাশের বাতাস তখন গোলাপের গন্ধে ভরে ওঠে! গোলাপ এর ঘ্রান মিশ্রিত বাতাস যখন সারা শরীর স্পর্শ করে যায় তখন অদ্ভুত এক ভালোলাগার সৃষ্টি হয়!গোলাপগ্রাম

গোলাপগ্রাম

যদি কেউ গোলাপগ্রাম যান তাহলে অবশ্যই সন্ধ্যার পর যে গোলাপের হাট বসে সেটা দেখে আসবেন!

আমি যখন হাট দেখে রাত ৮টার দিকে গোলাপগ্রাম থেকে ফিরছিলাম তখন গ্রামের চারিদিকে ঝিঝি পোকার অবিরাম ডাকাডাকি! নদীতে মাছেদের জলকেলি!চারিদিকে নিকষ কালো অন্ধকার! চারিদিকে জনমানবের কোনো অস্তিত্ব তখন টের পাচ্ছিলাম না!নিজের অস্তিত্ব হাতড়ে বেড়াচ্ছিলাম নিকষ কালো অন্ধকারের মধ্যে! নিজের কাছে নিজেকেই অচেনা মনে হচ্ছিল! নিজেকে হারিয়ে ফেলছিলাম অন্য কোথাও!গোলাপগ্রাম

শুধু মনে মনে বলছিলাম,
"এমন দেশটি কোথাও খুঁজে পাবে নাকো তুমি,
সকল দেশের রাণী সে যে, আমার জন্মভূমি"