মধ্যযুগের সপ্তাশ্চর্যের মধ্যে আছে মানুষের তৈরি সবচেয়ে নয়নাভিরাম স্থাপত্য বলে খ্যাত আগ্রার তাজমহল, চীনের প্রাচীর, রোমের কলোসিয়ামসহ ইতালির পিসা শহরের হেলানো টাওয়ার! হেলানো টাওয়ার, এ কি অদ্ভুত নাম !! টাওয়ারের ছবিটাতেও দেখতাম সুদৃশ্য এক টাওয়ার যেন শূন্যে একপাশে বেশ খানিকটা হেলে আছে! আর এই হেলে থাকার জন্যই সে সপ্তাশ্চর্যের একটি হবার কালজয়ী গৌরব অর্জন করেছে। চলুন পাঠক, ঘুরে আসি বিশ্বের বিস্ময় পিসার হেলানো টাওয়ার থেকে।

হেলানো টাওয়ার কেন হেলানো?

পিসার টাওয়ার স্থাপনের কাজ প্রথম শুরু হয় ১১৭৩ সালে, একই প্রাঙ্গণে অবস্থিত ক্যাথেড্রালের ঘণ্টা স্থাপনের জন্য গোলাকার স্তম্ভের মত স্থাপত্য হিসেবে। নির্মাণ কাজ চলে নানা নাটকীয় ঘটনা ও রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মধ্যদিয়ে সুদীর্ঘ ১৭৭ বছর ! কিন্তু টাওয়ারের রহস্যময় হেলে পড়া শুরু হয় ১১৭৮ সালে, মাত্র তৃতীয় তলার কাজ সমাপ্ত হওয়ার পরপরই। ধারনা করা হয় এর ভিত্তিতে মাটি ছিল নরম ও ঝুরঝুরে, অর্থাৎ স্থাপত্যের জায়গা নির্বাচনই ছিল ভুল। কিন্তু সে সময়কার স্থপতিরা অপরিসীম মেধার পরিচয় দিয়ে ক্রমান্বয়ে গড়ে তুলতে থাকেন একের পর এক তলা, এই ক্রমশ বাঁকা হতে থাকা ভিত্তির উপরই।

বর্তমানে পিসার হেলানো টাওয়ার তার ভরকেন্দ্র থেকে প্রায় ১৩ ফিট অন্যদিকে হেলে আছে! অর্থাৎ টাওয়ারটি স্বাভাবিক ভাবে অবস্থান করলে ১৪৫০০ মেট্রিক টনের মানুষের তৈরি দুর্ঘটনার শিকার এই বিস্ময়টি ১৩ ফিট সরে খাঁড়া ভাবে অবস্থান করত।

হেলানো টাওয়ারের ভবিষ্যৎ

শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে মানুষ চেষ্টা করে গেছে পিসার টাওয়ারের পড়ে যাওয়া রোধ করতে, সবই পণ্ডশ্রম। সমস্ত প্রচেষ্টাকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে নিয়মিত ভাবে প্রতি বছরই এক মিলিমিটার হেলতে থাকে তা, যার অর্থ ভবিষ্যতে বিস্ময়টি একদিন ভূপাতিত হতে বাধ্য! এই হেলতে থাকা ঠেকাতে চলতে থাকে নানা চেষ্টা, অবশেষে ১৯৯৮ সালে এসে এক ফলপ্রসূ উপায়ের সন্ধান পাওয়া যায়।

বিশেষ ধরনের কাঠামো তৈরি করে নানা পদ্ধতিতে এই বিশাল স্থাপত্যকে প্রায় ধরে-বেধে প্রকৌশলীরা এর নিচ থেকে আস্তে আস্তে আলগা মাটি সরিয়ে নেন, সেই জায়গা নিরেট করে পূরণ করার সাথে সাথে বিপুল পরিমাণ ওজনদার বস্তু হেলে পড়ার উল্টো দিকে চাপিয়ে দেন। ফলশ্রুতিতে এতো আর হেলছেই না বরং কিছুটা খাঁড়া অর্থাৎ স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরেছে। প্রমাণ হিসেবে দেখা যায়, এক সময়ে ৫ মিটারের অধিক হেলে থাকা টাওয়ারটি এখন প্রায় ৪ মিটার হেলে আছে!

কিছু মানুষ আছে যারা জানে কিভাবে পিসার হেলানো টাওয়ারের সাথে ছবি তুলতে হয়! ছবি তোলার সময় কেমন পোজ দিতে হবে আসুন তাদের কাছ থেকেই শিখে নেই!

এই আইসক্রিম শেষ করতে ভালই সময় লাগবে বোঝা যাচ্ছে।

michigangirlinpearlsmichigangirlinpearls

 

এই টাওয়ারের হেলে যাওয়া ঠেকাতে তৎপর এক তরুণ!

onur_t01onur_t01

টাওয়ার গুম করে দেয়ার পায়তারা চলছে!

guillaume.m.langeguillaume.m.lange

শুধু মানুষই না, কুকুরেরাও জানে কিভাবে সেরা ছবি তুলতে হয়!

dilyemeradilyemera

এই লোক সেরা হওয়ার জন্য সেরা পোজটাই দিয়েছেন!

SuicidalSylveonSuicidalSylveon

বন্ধুই বন্ধুর কাজে আসে!

ThinkMcFlyThinkThinkMcFlyThink

 

পারফেক্ট টাইমিং এ পারফেক্ট পোজ!

StarsynixStarsynix