২০১১ সালের কথা, শন ফাঙ্ক নামের একজন খনি কর্মচারী আলবার্টার একটি স্থানের মাটি খোঁড়ার সময় বিশালাকারের এক হাড় আবিষ্কার করেন। শন প্রথমে বুঝতে পারেননি তিনি কি আবিষ্কার করতে যাচ্ছেন! তাঁর ভাষ্যমতে, "এত বড় হাড় আমি এর আগে কখনো দেখিনি" দেখবেনই বা কিভাবে? এ তো আর কোন মানুষের হাড় নয়! ১১০ মিলিয়ন বছর আগে হারিয়ে যাওয়া এক ডায়নোসরের হাড় এটি। নাম নডোসর। বর্তমানে এটি দেখতে চাইলে আপনাকে যেতে হবে রয়্যাল টাইরেল মিউজিয়ামে।

 

চলুন এক নজরে দেখে আসা যাক ডায়নোসরটির কিছু ছবি

 

এমন আবিষ্কারের ফলে বিজ্ঞানীরা এখন ভাসছেন আনন্দের জোয়ারে, তাদের সামনে অতীতের নতুন এক রহস্য দরজা উন্মোচিত হয়েছে।

 

প্রায় ১১০ মিলিয়ন বছর পুরনো এই ডায়নোসরকে ডাকা হয় নডোসর নামে

 

ডায়নোসরটি আবিষ্কৃত হয় ২০১১ সালে তেলের খনিতে কাজ চলাকালীন সময়ে

 

"আমরা শুধু ডায়নোসরের হাড়ই পাইনি বরঞ্চ মাংশ চামড়া সহ এক পূর্ণাঙ্গ ডায়নোসরই পেয়েছি"

 

"সম্ভবত এটি বন্যার পানিতে ভেসে পতিত হয়েছিল সমুদ্রে। যার ফলে হয়ত এত বছর পরেও এটি সঠিকভাবে সংরক্ষিত আছে"

 

এটি হচ্ছে সেই ডায়নোসরের একটি রেপ্লিকা। ধারণা করা হয় নডোসরটি দেখতে ঠিক এরকমই

হয়ত এইসব ফসিলের সূত্র ধরেই একদিন বের হয়ে আসবে অতীতের অনেক হারানো বার্তা।