কাযাক ভাষায় lake kaindy শব্দদ্বয়ের অর্থ বার্চ গাছের হ্রদ। প্রায় ৪০০ মিটার লম্বা ও ৩০ মিটারের মত গভীর এই লেক কাযাকস্থানের আলমাতি শহরের প্রান্তে অবস্থিত। 

কোলসাই লেক ন্যাশনাল পার্কে অবস্থিত এই লেক নানা বিশেষত্বে পূর্ণ। একেতো সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২০০০ মিটার উচ্চতায় এর অবস্থান, সাথে আছে চারপাশ ঘেরা অপূর্ব সুন্দর কাজাখ প্রকৃতি, আর পাহাড়ি নদী বয়ে আসা স্বচ্ছ জল- তবে সবথেকে বিশেষ যেই ব্যাপারটি একে অনন্যতা দান করেছে তা হল এই লেকের জলে ডুবে আছে আস্ত একটি বন!  

এখন যে জায়গাটিতে টলটলে জলের লেক, আগে ছিল সেখানে ঘন সন্নিবেশিত বার্চ-স্প্রাউসের বন।  ১৯১১ সালের কথা, কেবিন ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে এই পাহাড়ি এলাকা। ঘটে যায় ভয়াবহ এক ভূমিধ্বস। যা এক প্রাকৃতিক বাঁধ এর তৈরি করে এই জায়গাটিতে। পাহাড়ি নদীর জল এসে জমা হয় এখানে, আর সে জলে তলিয়ে যায় বার্চ-স্প্রাউসের বন। মুহূর্তের মধ্যে ঘটে যায় এতকিছু।

এখনো জলের নিচ থেকে ভুতুড়ে কোন জাহাজের মাস্টহেডের মতই মাথা তুলে দাঁড়িয়ে আছে গাছগুলোর মৃতদেহ। তবে তাদের সলিল সমাধি হয়ে দাঁড়িয়েছে দারুণ দর্শনীয় এক পর্যটন স্পট। আজ ১০০ বছর পরেও লেকের স্বচ্ছতোয়া জলের ভেতর দিয়ে পরিষ্কার দেখা যায় নিচের দৃশ্য। ডাইভার রা ডাইভ দেয় লেকের জলে, হারানো বন আর লেকের স্মৃতি খুঁজে ফেরে এখানে। 

লেক কাইন্ডির জলের নিচের দৃশ্য ।annika perry's writing blogলেক কাইন্ডির জলের নিচের দৃশ্য ।annika perry's writing blog

এই লেক কে ডাকা হয় 'পার্ল অফ দ্যা নর্দার্ন তিয়েন শান'। আল্মাতি থেকে ১২৯ কিলোমিটার দূরত্বে অবস্থিত এই লেকে পৌছুতে ড্রাইভ করতে হয় ৫ ঘন্টার ও বেশি সময়। 

বাংলাদেশি পর্যটক রেজাউল বাহার স্বস্ত্রীক গিয়েছিলেন চমৎকার এই লেকের পাশে। তার ক্যামেরা থেকে দেখুন লেকের দৃশ্য-