সুনামগঞ্জ এর টাংগুয়ার হাওড়, বছরের অর্ধেক সময় ডুবে থাকে জলের নীচে। ডাঙা সমতলের আমরা যে জীবনে অভ্যস্ত নই, তেমন জীবন তাদের। সময় কিছুটা অলস সেখানে, প্রকৃতি কিছুটা বেশিই উদার।

হাওড় পেরিয়ে ট্যাকেরঘাট, সেখানে মেঘ, পাহাড়, ঝর্ণা, জল আর সবুজের অকৃপণ ছড়াছড়ি। কোবাল্ট রঙা নীল জলের কোয়ারি লেকের পাড়ে একটা বিকেল কাটালে আপনি ভাবতে বাধ্য হবেন, জীবন সুন্দর, অনেক বেশি সুন্দর। 

হাত বাড়িয়ে ছোয়া যায় এমন দূরত্বে মেঘালয় (সত্যিই, বাড়িয়ে বলছি না!), আর জাদুকাটা নদী। তবে নামেই জাদুকাটা, জাদু কাটবে না, বরং নতুন করে জাদু করে দেবে নিজের রুপে। 

আমার আর একটা স্বপ্নপূরন, আর একটু ভালোলাগার ছবিগুলো ভাগাভাগি করে নিচ্ছি আপনাদের সাথে....

মেঘের আলয়- মেঘালয় দেখা যায়... মেঘের আলয়- মেঘালয় দেখা যায়...

হাওড় পেরিয়ে প্রথম পাহাড় দর্শনের অনুভূতি, ওই যে দূরে পাহাড় দেখা যায়....হাওড় পেরিয়ে প্রথম পাহাড় দর্শনের অনুভূতি, ওই যে দূরে পাহাড় দেখা যায়....

পাহাড়ের গায়ে জমে থাকা মেঘ। দেখাই যায় শুধু, ছোয়া যায়না। সব দাদাদের !পাহাড়ের গায়ে জমে থাকা মেঘ। দেখাই যায় শুধু, ছোয়া যায়না। সব দাদাদের !

কোয়ারি লেক।কোয়ারি লেক।

 

তাহিরপুরের পথতাহিরপুরের পথ

বাইক ই একমাত্র যানবাহন এখানে! বাইক ই একমাত্র যানবাহন এখানে!

হাওড়ের শৈশবহাওড়ের শৈশব

জাদুকাটা নদী।জাদুকাটা নদী।

জাদুকাটাজাদুকাটা

জাদুকাটার পাড়ে... জাদুকাটার পাড়ে...

রাজাই ঝর্ণা। বুনো সৌন্দর্য্য। শহুরে পদচারনায় মুখর নয়। সে এখনো ধরে রেখেছে তার আভিজাত্য। এই ঝর্ণার আপস্ট্রিম টা আরো বেশি সুন্দর। দুঃখিত, ছবি দিতে পারছি না। পাহাড়ি কয়েকটা মেয়ে তখন আপস্ট্রিমে গোসল করছিল বলে ওখানে সবাই যাইনি বা কোন ছবিই তুলিনি আমরা।রাজাই ঝর্ণা। বুনো সৌন্দর্য্য। শহুরে পদচারনায় মুখর নয়। সে এখনো ধরে রেখেছে তার আভিজাত্য। এই ঝর্ণার আপস্ট্রিম টা আরো বেশি সুন্দর। দুঃখিত, ছবি দিতে পারছি না। পাহাড়ি কয়েকটা মেয়ে তখন আপস্ট্রিমে গোসল করছিল বলে ওখানে সবাই যাইনি বা কোন ছবিই তুলিনি আমরা।

ঝর্ণার একদম লোয়ার স্টেপ।ঝর্ণার একদম লোয়ার স্টেপ।

 বিছনাকান্দির মতই দেখতে। লাকমাছড়া। বিছনাকান্দির মতই দেখতে। লাকমাছড়া।

আহা!আহা!

ট্যাকেরঘাট ট্যাকেরঘাট

নৌকানৌকা

এই ঝর্না টা ফাকা দেখার সৌভাগ্য খুব কম মানুষের হয়। এত বেশি মানুষ এখানে থাকে যে বাজার লাগে দেখতে। একদম শেষ বিকেলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত সঠিক ছিল, সেইসাথে সৌভাগ্যবান আমরা, মানুষের বাজারের পরিবর্তে সত্যিকার ঝর্না দেখতে পেয়েছি।এই ঝর্না টা ফাকা দেখার সৌভাগ্য খুব কম মানুষের হয়। এত বেশি মানুষ এখানে থাকে যে বাজার লাগে দেখতে। একদম শেষ বিকেলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত সঠিক ছিল, সেইসাথে সৌভাগ্যবান আমরা, মানুষের বাজারের পরিবর্তে সত্যিকার ঝর্না দেখতে পেয়েছি।

mighty shongrampunji! mighty shongrampunji!

পেছনের এই বাংলোই সিলেটে আমার প্রিয় আশ্রয়- নলজুড়ি ডাকবাংলোপেছনের এই বাংলোই সিলেটে আমার প্রিয় আশ্রয়- নলজুড়ি ডাকবাংলো

একটা অসম্ভব প্রিয় জায়গা। ছোট্ট টিলার উপরের এই বাংলোর জন্য দুবার আমার দুই জায়গার প্লান মিস হয়েছে। কারন এর বারান্দায় দাড়ালেই এত চমৎকার দৃশ্য, ঝর্ণা আর মেঘ দেখা যায় যে রাজ্যের আলসেমি এসে শরীরে ভড় করে। আর কোথাও যেতে ইচ্ছে করে না, মনে হয় এখানেই বসে থাকি, বিকেল-রাত-সকাল-দুপুর গড়িয়ে যাক....একটা অসম্ভব প্রিয় জায়গা। ছোট্ট টিলার উপরের এই বাংলোর জন্য দুবার আমার দুই জায়গার প্লান মিস হয়েছে। কারন এর বারান্দায় দাড়ালেই এত চমৎকার দৃশ্য, ঝর্ণা আর মেঘ দেখা যায় যে রাজ্যের আলসেমি এসে শরীরে ভড় করে। আর কোথাও যেতে ইচ্ছে করে না, মনে হয় এখানেই বসে থাকি, বিকেল-রাত-সকাল-দুপুর গড়িয়ে যাক....

বাংলোর বারান্দা থেকে।বাংলোর বারান্দা থেকে।

মহাজাগতিক নির্জনতা এখানে... মহাজাগতিক নির্জনতা এখানে...

বাংলোর বারান্দা থেকে দেখা যায় ঝর্না। শুনেছি অবিরাম উচ্ছল হাসির মত ভেংগে পড়া জলের শব্দ। সেই শব্দ না ঊঠতে দেয়, না বসতে... কিন্তু তাকে ছোয়া তো দূরে থাক, কাছে যাওয়ার ও সৌভাগ্য হয়নি।বাংলোর বারান্দা থেকে দেখা যায় ঝর্না। শুনেছি অবিরাম উচ্ছল হাসির মত ভেংগে পড়া জলের শব্দ। সেই শব্দ না ঊঠতে দেয়, না বসতে... কিন্তু তাকে ছোয়া তো দূরে থাক, কাছে যাওয়ার ও সৌভাগ্য হয়নি।