যখন কেউ মনোযোগ সহকারে বই পড়ায় ব্যস্ত থাকে তখন কেউই চারপাশে তাকিয়ে থাকতে পছন্দ করে না। কিন্তু চীনে প্রতিষ্ঠিত এই চমৎকার লাইব্রেরী দেখার সাথে সাথে একটি ব্যতিক্রমী প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হবে। কারণ আপনি নিচে দেখতে পাবেন, অবিশ্বাস্য কাঠামোর মাঝখানে একটি বিশাল গোলাকার অডিটোরিয়াম রয়েছে যা একটি বিশাল চোখের মতো দেখা যায়। চমকপ্রদ এই লাইব্রেরীর স্থাপত্য দেখলে তাকিয়ে থাকতে ইচ্ছে করবে।  

পাঁচতলা বিশিষ্ট এই লাইব্রেরীটি তিয়ানজিনের বিনহাই কালচারাল জেলাতে অবস্থিত, যা ডাচ ডিজাইন ফার্ম এমভিআরডিভি, টিয়ানজিন এনার্নাল প্ল্যানিং অ্যান্ড ডিজাইন ইনস্টিটিউট (টিপডিআই)-এর সাথে সম্মিলিত সহযোগিতায় নকশা করা হয়েছে এবং ‘বিনহাইয়ের চোখ’ নামকরণ করা হয়েছে।

এটি ৩৪,০০০ বর্গ মিটার এলাকাজুড়ে বিস্তৃত এবং ১.২ মিলিয়ন পর্যন্ত বই ধারণ করতে পারে। এই লাইব্রেরী নির্মাণ সম্পন্ন করতে মাত্র তিন বছর সময় লেগেছিল। এই লাইব্রেরীর বৈশিষ্ট্য হলো- ভিতরের তল, মধ্যবর্তী বিভাগে অফিস, আরামকক্ষের এলাকা, মিটিং স্থান এবং শীর্ষস্থানে কম্পিউটার, অডিও কক্ষ নিয়ে একটি পাঠযোগ্য এলাকা রয়েছে।

আমরা নিশ্চিত না যে, সেখানে আমরা কতটুকু পড়াশুনায় মনোযোগ দিতে পারবো। তবে নিশ্চিত যে, আমরা বিস্ময়কর স্থাপত্য দেখে বিস্মিত হবো এবং স্থাপত্যের দিকে তাকিয়ে থাকতে থাকতেই সময় পার হয়ে যাবে!

এমভিআরডিভি-এর সৃষ্টিশীল স্থাপত্য এটিই প্রথমবারের মতো নয়, তাঁরা অবিরাম সৃষ্টিশীল স্থাপত্য নির্মাণ করেছেন এবং করে যাচ্ছেন।

আধুনিক প্রেক্ষাতে মেঝে থেকে সিলিং পর্যন্ত লাইব্রেরীটি এমনভাবে নকশা করেছেন যে, দেখে মনে হবে যেন সম্পূর্ণ বই দিয়ে সাজানো হয়েছে। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে, হলের বেশিরভাগ আচ্ছাদনগুলো মুদ্রিত চিত্র। আসল বইগুলো ভবনের অন্যান্য কক্ষের মধ্যে সংরক্ষিত করা হয়েছে।  

বোরডপান্ডা থেকে অনুদিত।