খাবার তো নয় যেন চোখ, মন আর জিহ্বার সংযমের পরীক্ষা। বলছি হীরা লাল এর কুল্লে চাট এর কথা। এ জিনিস দেখতে যেমন সুন্দর, বাহারি রঙের নানান ফলের বিচিত্র উপস্থাপন চোখকে দেয় আরাম, আর চাট মশলার দূর্দান্ত উপস্থিতি নিমেষেই জিহ্বা কে করে ফেলে লালায়িত- এই মাস্টারপিসের স্বাদ নেবার জন্য!

খাবারের থেকে এর পাত্রটিই যেন বেশি আকর্ষণীয়! স্বয়ং খাদ্য পাত্রটিকেও আপনি খেয়ে ফেলবেন, কারণ সেটা একটা ফল। ঠিক ধরেছেন- ফল কেটেকুটে ছোট্ট একটা ঝুড়ির মত আকৃতি দিয়ে তাতেই পরিবেশন করা হয় মশালাদার চাট, আবার সেই চাট এও থাকে ফল! ফলের সাথে সবজি ও ব্যবহার করা হয়।

দিল্লীর স্ট্রিটফুড- যা আপনার মন কেড়ে নেবেদিল্লীর স্ট্রিটফুড- যা আপনার মন কেড়ে নেবে

সাধারণত পেপে, টমেটো, শশা, আপেল, ছোট্ট কমলা, আলু, গাজর এসবই ব্যবহৃত হয় পাত্র হিসেবে। চাট এ দেয়া হয় ব্ল্যাক সালফার লবন, আনারদানা, সিদ্ধ চানা, লেবুর রস সহ সিক্রেট সব উপাদান। সবগুলো উপাদান মিলে দারুণ সমন্বয় তৈরি করে যার স্বাদ আপনার জিহ্বা থেকে মনেও ছড়িয়ে পড়তে পারে, আর গেড়ে ফেলতে পারে স্থায়ী আসন!

দুঃখের কথা হল, এটি খেতে হলে আপনাকে পারি দিতে হবে অনেকটা রাস্তা- সেই দিল্লী অব্দি! তবে দিল্লী একবার পৌঁছে গেলে এই চাট না খেয়ে ফিরে আসাটা ঘোরতর অন্যায়।

কুল্লে চাট এর পরিবেশন কুল্লে চাট এর পরিবেশন

কোথায় পাবেনঃ

দিল্লীর মেইন চৌরি বাজার রোড এই হীরা লাল চাটওয়ালার দোকান। মেট্রো তে করে চৌরি চক পৌঁছে ৩ নাম্বার গেট দিয়ে বেড়িয়ে পড়ুন মেট্রো ষ্টেশন থেকে। এবার চৌরি বাজার রোড এ উঠে যে কাওকে জিজ্ঞেস করুন হীরা লাল চাটওয়ালার দোকান কোনটা? দেখিয়ে দেবে!

হীরা লাল চাটওয়ালা- এই দোকানেই পাবেন সুস্বাদু এই খাবারটিহীরা লাল চাটওয়ালা- এই দোকানেই পাবেন সুস্বাদু এই খাবারটি

দোকান খোলা থাকে দুপুর থেকে রাত দশ টা অব্দি। তবে বিকেলের দিকে যাওয়াটাই শ্রেয়।

ছবি- migrationology.com