গত মধ্যরাতের কথা মনে পড়ছে বারবার, নিজের কাছেই মনে হচ্ছে অবিশ্বাস্য, অকল্পনীয়, অতিকথন। আর হবে নাই বা কেন? সন্ধ্যা সাতটায় ফিনল্যান্ডের রাজধানী হেলসিংকির জমাট ঠাণ্ডা আবহাওয়া ফেলে এসে নামলাম ছবির দেশে, কবিতার দেশে! বিশ্বের সবচেয়ে জমজমাট উপভোগ্য সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডলে ঘেরা মহানগরী প্যারিসে।

 

New Years Eve by Onu TareqNew Years Eve by Onu Tareq

বাতাসে হিমের আভাস , কিন্তু দিনটা যে ৩১ ডিসেম্বর ২০০৯! মহাকালের অতল গর্ভে হারিয়ে যাওয়ার মুহূর্তে একটি স্মৃতিময় বছর, সেই সাথে আবির্ভাবে মুহূর্তে ২০১০, আর এই মাহেন্দ্রক্ষণ উদযাপন উপলক্ষে আমরা প্যারিসে।

কে না জানে, বিশ্বের অন্যতম প্রাণময়, উচ্ছল, বর্ণিল বর্ষবরণ উৎসব জমে ওঠে আইফেল স্তম্ভ সংলগ্ন এলাকায়। চলুন, ঘুরে আসা যাক ২০১০-এ প্রবেশের মুহূর্তে আইফেল স্তম্ভের পাদদেশ থেকে।

New Years Eve by Onu Tareq New Years Eve by Onu Tareq

স্থানীয় বন্ধুরা আগেই জানিয়ে দিয়েছিল আইফেল স্তম্ভে কাউন্ট ডাউনে যাচ্ছ খূব ভালো কথা, কিন্তু মেট্রো, বাস ভুলে যাও, তাহলে কি ট্যাক্সিই শেষ ভরসা! এমনিতেই ছাত্রমানুষ, ট্যাক্সিতে ওঠার কার্যকারণ নিতান্ত গলায় হাড় ঠেকলে, কিন্তু কেন সাধারণ পরিবহন ব্যবস্থা ব্যবহার করা যাবে না? রাস্তায় পা দিয়েই বুঝে গেলাম কেন- জনারণ্য! সত্যিকারের বহমান গর্জনশীল জনসমুদ্র বলতে কি বোঝায় তা হাড়-মাংসে বোঝা গেল একের পর এক ধাক্কা খেয়ে সামনে এগোতে এগোতে। সুবিখ্যাত চওড়া রাস্তাগুলোতেও সারি সারি গাড়ীর জ্যাম বেঁধে একেবারে যা-তা অবস্থা, কিন্তু সবাই-ই হাসিমুখে মেনে নিয়েছে এই নববর্ষ উপদ্রব।

 

New Years Eve by Onu Tareq New Years Eve by Onu Tareq

অবশেষে আইফেল স্তম্ভের গোঁড়ায় পৌছালাম রাত সাড়ে দশটায়। লোহালক্কড়ের ধাতব এই স্থাপনা তখন মাতিসের অদ্ভুত অপার্থিব নীলাভ রঙে রাঙানো, যেন পুরনো বছরের বিদায়ের শোকবার্তার বেদনায় নীল। আসলে আইফেল স্তম্ভের নববর্ষকে স্বাগতম জানানোর এত ভিড় হবার এটা অন্যতম মুখ্য কারণ, নানা বর্ণে নিজেকে আজ রাঙাবে সে, ক্ষণে ক্ষণে, বেদনার নীল থেকে আনন্দের বানে ভাসা সোনালীতে।

আইফেল স্তম্ভ দর্শনের সৌভাগ্য আগেও হয়েছে তবে এমন রঙিন শোভা টেলিভিশনেই কেবল দেখা ছিল, চর্মচক্ষে এই প্রথম। ইতিমধ্যেই বন্ধ হয়ে গেছে উপরে ওঠার সমস্ত লিফট, কেবলমাত্র তত্ত্বাবধানকারীদের ব্যস্তসমস্ত হয়ে এক্সেলেটরে করে উঠানামা করতে দেখা যাচ্ছে নিয়মিত।

 

New Years Eve by Onu Tareq New Years Eve by Onu Tareq

রাত সাড়ে এগারটায় দক্ষ, নিপুণ হাতে স্তম্ভের সমগ্র শরীরে বাঁধা বৈদ্যুতিক বাতিগুলোর বর্ণ পরিবর্তনের সাথে সাথে চড়া শব্দে বাজান সংগীতে যেন জীবনের উচ্ছাসে মাতাল হয়ে গেল কাঠ-লোহার তৈরি, বার্নিশ করা স্তম্ভটি! কখনো সে রেনোয়ার সোনালী রঙে রাঙানো কিংবা গগ্যার জ্বলজ্বলে লাল। পরমুহূর্তেই সেজানের পান্না সবুজ, আবার ক্লদ মোনের অতল নীল, তো ভ্যান গগের তীব্র হলুদ, পিকাসোর গোলাপি, দেগার শুভ্র বর্ণ, আবার কখনো সবগুলো রঙের সমন্বয়ে একের পর এক অচেনা, অদেখা নবসাজে দেখা দিতে লাগল চিরচেনা আইফেল স্তম্ভ এবং প্রতিটি রঙ পরিবর্তনই কিন্তু ছন্দের তালে তালে, সংগীতের মাতাল করা উদ্দামতায়, অপার্থিব সুরমূর্ছনায়।

 

New Years Eve by Onu Tareq New Years Eve by Onu Tareq

মনে হল, আমার মাঝে আমি আর নেই, মিশে গেছি সেই মহাজনসমুদ্রে, নেহাৎ ভুল করে মর্ত্যে চলে আসা একটুকরো অমরাবতীর জগৎ আলো করা বিভায়। আমাদের সাথে সাথে সারা বিশ্ব তখন হাজির, সুরের ঝংকার তুলে ফরাসী, স্প্যানিশ, ইতালীয়, পর্তুগীজ ভাষা যেমন কর্ণকুহরে প্রবেশ করছে, তেমনি সমানে কামান দেগে যাচ্ছে জার্মান, ডাচ, গ্রীক ভাষা, হঠাৎ রণক্ষেত্রের মেশিনগানের মত আওয়াজ তুলে যাচ্ছে নরয়েজিয়ান, ডেনিশরা, সেই সাথে কিচির মিচির করে মাতিয়ে রেখেছে চীনা, জাপানী, কোরিয়ানরা।

 

New Years Eve by Onu Tareq New Years Eve by Onu Tareq

সবাই এসেছে এই পরম মুহূর্তের সাক্ষী হয়ে থাকার আশায়। দর্শনার্থীদের মধ্যে তরুণ-তরুণীদেরই প্রাধান্য বেশী, এর মধ্যে সিংহভাগ স্থানই দখল করে রেখেছে টিনএজাররা। আশেপাশে অশীতিপর বৃদ্ধদের সরব উপস্থিতিও প্রমাণ করে , আসলে সব বয়সেরই মানুষের সমাগম ঘটেছে কানায় কানায়। অনেকের হাতের পানীয়ের বোতল, কিন্তু কোথাও শৃঙ্খলাভঙ্গের লেশমাত্র দেখা গেল না। যদিও আইনশৃঙ্খলারক্ষী বাহিনী ও স্বেচ্ছাসেবকরা তাদের পরিবার-পরিজন নিয়ে নববর্ষের উদযাপনের মজা মাটি করে বার বার তদারকি করে যাচ্ছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা। একেক বার একেক ধরনের পদক্ষেপ নিয়ে দেদার চেষ্টা করে যাচ্ছে ভিড় খানিকটা কমানোর, যাতে সবাই নিরাপদে সুস্থির ভাবে উপভোগ করতে পারে আলোর কারসাজি।

 

New Years Eve by Onu Tareq New Years Eve by Onu Tareq

অবশেষে শুরু হল ক্ষণগণনা, শুরু থেকেই চিন্তা করে যাচ্ছি ঠিক মধ্য রাতের ঘণ্টা বাজার সাথে সাথেই আইফেল কোন মোহিনী সাজ ধারণ করে সবাইকে চমকে দিতে পারে, কিন্তু সম্ভাবনার পর সম্ভাবনা বঙ্গোপসাগরের বেলাভূমিতে আছড়ে পড়া ঢেউয়ের মত মাথায় আসলেও সঠিক উত্তর বুঝতে পারছি না।

 Onu Tareq Onu Tareq

অবশেষে কয়েক মুহূর্ত বাকী থাকতে হঠাৎ সব আলো নিভিয়ে জড়ভরতের মত নিকষ আলো আঁধারে দাড়িয়ে রয়ল সে! তাহলে এই কি চমকে দেয়া বর্ষবরণ? সারাবেলা আলোর কারসাজি দেখিয়ে আসলে সময়ে আঁধারে ঢাকা মুখ !

New Years Eve by Onu Tareq New Years Eve by Onu Tareq

কিন্তু মধ্যরাত হবার সাথে সাথেই ভুল ভেঙ্গে গেল সবার, হঠাৎ আলোর ঝলকানির মত এক ঝাক জোনাকির ন্যায় প্রজ্জল আলোর ফুলকি নামতে থাকল আইফেল বেয়ে, অবিরাম ধারায়! মনে হল শুভ্র আগ্নেগিরির জ্বালামুখে রূপালী অগ্নুৎপাত ঘটছে। ঠিক সেইসময়ই সীন নদীতে হাজির হওয়া জলযানের তীব্র সার্চলাইটের আলোয় মুহূর্তেই বিশাল স্তম্ভটি পরিণত হল সোনালী জীবন্ত বিস্ময়ে!

New Years Eve by Onu Tareq New Years Eve by Onu Tareq

আকাশে একের পর এক ফুটে যাচ্ছে নানা ধরনের, নানা বর্ণের চোখ ধাঁধানো সব বাজি, কিন্তু আইফেলের এই অনন্য সৌন্দর্যের কাছে ম্লান বাকী সবকিছুই। বিশ্বচরাচরের সব পারিপার্শ্বিকতা ভুলে আমরাও জনতার মাঝে লীন হয়ে সেই শুভক্ষণে বলতে থাকলাম বোনানে বোনানে ( ফরাসীতে শুভ নববর্ষ)।।

New Years Eve by Onu Tareq New Years Eve by Onu Tareq

New Years Eve by Onu Tareq New Years Eve by Onu Tareq

New Years Eve by Onu Tareq New Years Eve by Onu Tareq

 Onu Tareq Onu Tareq

Paris NIghtParis NIght

Eiffel at night, 1st Jan, 2010Eiffel at night, 1st Jan, 2010

ছবি সংগ্রহঃ তারেক অণু