দেশের বাহিরে ছুটির দিন গুলো কাটানোর চেয়ে এক্সাইটিং আর কি হতে পারে! সুর্যোদয় উপভোগ, সমুদ্র, পাহাড়...। তবে বেশ কিছু বিপদ হতে পারে, যে বিষয়ে আপনি সচেতন না থাকলে, আপনার সপ্নের ভ্যাকেশন দুঃসপ্নে পরিনত হতে পারে। আমরা তেমন ১০ টা বিষয়ে সচেতন থাকতে অনুরোধ করব।

১. জেলি ফিশ,

জেলিফিশজেলিফিশ

উজ্জ্বল বর্নের মাছ এবং কোরাল থেকে সাবধান। সমুদ্রে অনেকসময় জেলি ফিশ বা উজ্জ্বল বর্নের মাছ দেখে বেশ আকর্ষণীয় দেখায়। এগুলো ভংকর বিপদ ঘটাতে পারে। যেখানে এগুলো দেখবেন, বিশেষ করে কোরাল, খালি পায়ে যাবেন না। অবশ্যয় স্যান্ডেল পরে নিবেন। এবং সতর্কতামুলক সাইনবোর্ড মেনে চলবেন।

২. রিপ কারেন্ট।

রিপ কারেন্টরিপ কারেন্ট

রিপ কারেন্ট আপনাকে সমুদ্র সৈকত থেকে টেনে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে মাঝ সমুদ্রে নিয়ে যেতে পারে। আপনি এমন পরিস্থিতিতে পড়লে এর বিপক্ষে সাতারের বৃথা চেষ্টা করবেন না, কারন এর শক্তি অনেক বেশি। আপনি চেষ্টা করবেন, সৈকতের সমান্তরাল রিপ কারেন্টের সাথে যাওয়ার, যখন এর গতি হালকা হয়ে যাবে, আপনি সহজে সৈকতে ফিরে আসতে পারবেন।

৩. মশা।

মশামশা

মশা এবং পোকামাকড় হতে সাবধান থাকবেন। বিভিন্ন অঞ্চলের মশা অনেক কঠিন রোগের জীবানু বহন করে। সাথে বাগ স্প্রে রাখবেন। পাহাড়ি অঞ্চলে গেলে ম্যালেরিয়ার ঔষধ খেয়ে নেবেন।

৪. মেরিন প্রিডেটর।

হাঙ্গরহাঙ্গর

হাংগর হতে সাবধান। যদি আপনি সমুদ্রে নেমে আঘাত পান এবং কেটে যায়, আপনি সাথে সাথে উঠে আসবেন। কারন আপনার কয়েক ফোটা রক্ত, হাংগরকে আপনার উপস্থিতি বুঝতে সহায়তা করে

৫. স্ট্রিট ফুড

স্ট্রিট ফুডস্ট্রিট ফুড

এশিয়ার বেশ কিছু দেশে স্ট্রিট ফুড খুব জনপ্রিয়। আপনি যদি অভ্যস্ত না হয়ে থাকেন, তবে স্ট্রিট ফুড বর্জন করায় শ্রেয়। আর যদি খেতে চান, খেয়াল রাখবেন ঝালের পরিমান যেন পরিমিত হয়। মাত্রাতিরিক্ত ঝাল খেয়ে আপনার পেটের সমস্যা হতে পারে। এবং আপনি রাস্তার খোলা পানি খাবেন না। যেয় কয়দিন থাকবেন অবশ্যয় মিনারেল ওয়াটার কিনে খাবেন।

৬. অপরিচিত উদ্ভিদ।

অপরিচিত উদ্ভিদ।অপরিচিত উদ্ভিদ।

অনেক প্রকৃতি প্রেমি থাকতে পারেন যারা বিদেশে অপিরিচিত গাছের প্রতি আগ্রহি হয়ে থাকেন। বিশেষ করে জংগল বা পাহাড়ি লোকেশনে একদমই অপ্রয়োজনে গাছে বা পাতায় হাত দিবেন না। বিষাক্ত পোকা বা জীবানু থাকতে পারে।

 

৭. সানব্লক।

সানব্লক। সানব্লক।

প্রচন্ড তাপ আর রোদে আপনার মুখমন্ডল বা শরীর পুড়ে যেতে পারে, অনেক কালো হয়ে যেতে পারে। আপনি হয়তো আপনার দেশে এমন আবহাওয়াতে অভ্যস্ত না। এক্ষেত্রে অবশ্যয় সানব্লক ব্যাবহার করবেন। প্রয়োজনে ফুলহাতা কাপড় পরবেন।

৮. বানর থেকে সাবধান

বানর থেকে সাবধানবানর থেকে সাবধান

দেখে হয়তো মনে হতে পারে বানর আপনার কোন ক্ষতি করবেনা। তবে সাবধান থাকবেন, হাতে খাবার থাকলে তারা তা কেড়ে নেয়ার যথেষ্ট চেষ্টা করবে। ক্যামেরা, জুয়েলারি সবাধানে রাখবেন। বানর এগুলো নিতে আপনার উপর ঝাপিয়ে পড়তে দিধাবোধ করবেনা।

৯. চুরি।

চুরি।চুরি।

চোর বা পকেটমার যেকোন দেশেয় থাকতে পারে। এটা গ্লোবাল সমস্যা। একসাথে সব টাকা না রেখে ভিন্ন ভিন্ন স্থানে রাখবেন। ক্রেডিট কার্ড ব্যাবহার উত্তম এতে ক্যাশ বহনের ঝুকি থাকবেনা। লকার ব্যাবহার করতে পারেন।

১০. ট্রাফিক জ্যাম।

জ্যামজ্যাম

যেকোনো মুভমেন্ট বিশেষ করে এয়ারপোর্ট এর ক্ষেত্রে অবশ্যয় হাতে পর্যাপ্ত সময় নিয়ে বের হবেন। আপনি যেকোনো সময় ট্রাফিক জ্যামে ফেসে যেতে পারেন। এছাড়াও ওয় দেশের ট্রাফিক আইন গুলো জেনে রাখবেন, অনাকাঙ্ক্ষিত বিপদ থেকে রক্ষা পাবেন।

আপনার ভ্রমন শুভ হোক।

(অনুবাদ)